নিউজ

‘রক্তকন্যা’ খ্যাত সোনিয়ার পরিবারের প্রতি সংহতি

।। সুরমা ডেস্ক ।।
প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে ফেসবুকে মন্তব্যের অভিযোগে গ্রেপ্তারকৃত সমাজসেবী ও রাজবাড়ীতে ‘রক্তকন্যা’ বলে খ্যাত সোনিয়া আক্তার স্মৃতির দুই শিশু সন্তানসহ পরিবারের প্রতি সংহতি জানিয়েছেন বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ। 
গত ৬ অক্টোবর, বৃহস্পতিবার ঢাকা থেকে বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক শামা ওবায়েদের নেতৃত্বে বিএনপির কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দল রাজবাড়ী শহরের ৩ নং বেড়াডাঙ্গায় স্মৃতির বাসায় গিয়ে দুই শিশু সন্তানসহ পরিবারের সদস্যদের সান্ত্বনা দেন এবং তাদের পাশে থাকার প্রতিশ্রুতি দেন।

যে ফেসবুক মন্তব্যের কারণে স্মৃতিকে গ্রেফতার করা হলো

এ সময় শামা ওবায়েদ বলেন, দমন-পীড়নের মাধ্যমে ক্ষমতায় টিকে থাকাই আওয়ামী লীগ সরকারের একমাত্র লক্ষ্য। স্মৃতির নয় বছরের মেয়ে মিষ্টি, তেরো বছরের ছেলে আদনান এবং তার পরিবারের পাশে বিএনপি আছে। বিএনপির পক্ষ থেকে সব ধরনের আইনি সহায়তা দেওয়া হবে স্মৃতিকে। ইতোমধ্যে বিষয়টি নিয়ে আইনজীবীদের সঙ্গে কথা হয়েছে। এসময় অন্যান্যের মধ্যে সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক সেলিমুজ্জামান সেলিম, নারী ও শিশু অধিকার ফোরামের সদস্য সচিব অ্যাডভোকেট নিপুণ রায় চৌধুরীসহ চার সদস্যের  বিএনপির প্রতিনিধি দল ও জাতীয়তাবাদী মহিলাদল কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি আফরোজ আব্বাসসহ মহিলাদলের নেতৃবৃন্দ পরিবারের পাশে বেশ কিছু সময় কাটান। এসময় স্থানীয় নেতৃবৃন্দের মধ্যে রাজবাড়ী জেলা বিএনপির আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট লিয়াকত আলী, সাবেক সাধারণ সম্পাদক হারুন অর রশীদ, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান লিখন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
সেলিমুজ্জামান সেলিম বলেন, দুই শিশু সন্তানের কাছ থেকে তাদের মাকে গভীর রাতে ছিনিয়ে নেওয়ার মতো করে গ্রেপ্তার করা হৃদয় বিদারক একটা বিষয়।  নিপুণ রায় চৌধুরী বলেন, শুধু সোনিয়া আক্তার স্মৃতি নয়, এভাবে সরকারের দ্বারা নির্যাতিত প্রতিটি পরিবারের দায়িত্ব নেবে বিএনপি। আমাদের ক্ষমতার দরকার নেই। আমাদের দরকার জনগণের ভালোবাসা। এই ভালোবাসাই হচ্ছে বিএনপির শক্তি। এই শক্তি নিয়েই সামনে এগিয়ে যাব।

উল্লেখ্য, ফেসবুকে প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে মন্তব্য করার অভিযোগে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের সদস্য সচিব সামসুল আরেফিন চৌধুরীর দায়ের করা ষড়যন্ত্র মামলায় সোনিয়া আক্তার স্মৃতিকে বুধবার দিবাগত রাতে গ্রেপ্তার করে রাজবাড়ী থানা পুলিশ। যদিও স্মৃতি তাঁর মন্তব্যে শেখ হাসিনার নাম উল্লেখ করেননি।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

Back to top button
Close
Close