নিউজ

কেন্দ্রীয় কমিটির মামলায় যুক্তরাজ্য উদীচীর বিজয়

লণ্ডন, ১৮ নভেম্বর – যুক্তরাজ্য উদীচীর বিরুদ্ধে কেন্দ্রীয় কমিটির ‘মিস মোকদ্দমা’ করা মামলার রায় যুগ্ম জেলা জজ ১ম আদালত খারিজ করে দিয়েছে। ২০১৬ সালের ২২ জানুযারী আদালত উদীচী কেন্দ্রীয় কমিটির চিঠি এবং নির্দেশ অবৈধ বলে যে রায় দিয়েছিলো সেই রায়ে বিরুদ্ধে যুগ্ম জেলা জজের আদালতে কেন্দ্রীয় কমিটি এই ‘মিস মোকদ্দমা’ দাখিল করে। সে রায়ে উল্লেখ ছিলো যে, কেন্দ্রীয় কমিটি যুক্তরাজ্য কমিটিকে কোনো চিঠি বা নির্দেশনা দেয়ার এখতিয়া রাখে না। ফলে যুক্তরাজ্য উদীচীর পক্ষে সেই রায় গণ্য হয়। কেন্দ্রীয় কমিটির করা ‘মিস মোকদ্দমা’ নাম্বার ৩৮/২০১৩।

যুক্তরাজ্য উদীচীর পক্ষ থেকে গোলাম মোস্তফা সুরমাকে বলেন, গত ৭ বছর ধরে বিভিন্ন তালবাহানা ও মিথ্যার আশ্রয় নিয়ে আদালতের সময় ও অর্থ নষ্ট করা হয়। তিনি বলেন, যুক্তরাজ্য উদীচী এই ‘মিস মামলার বিরুদ্ধে হাই কোর্টের রায়সহ সকল তথ্য-উপাত্ত জমা দিয়ে কোর্টের প্রতিটি তারিখে হাজিরা দেয়। এর বিপরীতে কেন্দ্রীয় কমিটি তাদের করা ‘মিস মামলার পক্ষে কোনো প্রকার তথ্য-উপাত্ত জাম দিতে ব্যর্থ হয় এবং সময় ক্ষেপণের চেষ্টা করে। শেষ পর্যন্ত তাদের সকল প্রচেষ্টা ব্যর্থ হওয়ায় মামলাটি খারিজ করে দেওয়া হয় গত ৩ সেপ্টেম্বর ২০২০-এ। উদীচী কেন্দ্রীয় কমিটির বিরুদ্ধে এবং যুক্তরাজ্য উদীচীর পক্ষের রায় নিম্নরূপ:
১. উদীচী যুক্তরাজ্যকে পাঠানো উদীচী কেন্দ্রীয় কমিটির চিঠি অবৈধ ও বে-আইনী। ২. উদীচী কেন্দ্রীয় কমিটি যুক্তরাজ্যের অন্য কোনো উদীচীর শাখা না করার জন্য নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়। ৩. উদীচী যুক্তরাজ্যকে তার স্বাভাবিক কার্যক্রম পরিচালনায় কোনো প্রকার প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি না করার জন্য উদীচী কেন্দ্রীয় কমিটিকে নির্দেশ দেওয়া হয়।

এ মামলার রায়ের মাধ্যমে যুক্তরাজ্যের বিশিষ্ট সাংস্কৃতিক সংগঠক গোলাম মোস্তফা, বিশিস্ট কবি গোলাম কবির, বিশিষ্ট শিল্পী ফজলুল বারী বাবু, বিশিষ্ট সংগঠক নূরুল ইসলামের নেতৃত্বে বাংলাদেশ উদীচী, যুক্তরাজ্য – তাদের অধীনে এই সংগঠনটি একমাত্র বৈধ বলে প্রমাণিত হলো। রায়ের মাধ্যমে এটাও স্পষ্ট হয় যে, এই সংগঠনের লগো বা ট্রেডমার্ক আর কেউ ব্যবহার করলে তা বৈধ হবে না। এবং বৃটেনের আইনেও তা অবৈধ বলে গণ্য হবে। এর পরিপ্রেক্ষিতে উদীচী যুক্তরাজ্য সুরমাকে এক প্রেসবিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানায় যে, এই রায়ের পরেও অনেকেই ফেইসবুক ও বিভিন্ন অনলাইন মাধ্যমে অপপ্রচার করে যাচ্ছেন যা আইনগতভাবে ঠিক নয়। যারা বিভ্রান্তি ছড়ানোর লক্ষ্যে এমন কাজে লিপ্ত আছেন তারা অচিরেই তা বন্ধ করবেন বলে আমরা আশা করছি।

বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে উদীচী যুক্তরাজ্য জানায়, যুক্তরাজ্যে উদীচী একটি নিবন্ধিত ও অলাভজনক সাংস্কৃতিক সংগঠন। বৃটেনে এই সংগঠনের আর কোনো শাখা নেই। বৃটেনে আমাদের অনুমতি ছাড়া অন্য কোনো ব্যক্তি বা ব্যক্তি সমষ্টি আমাদের প্রিয় সংগঠন উদীচী শিল্পী গোষ্ঠীর নামে সংগঠন করতে পারেন না ও পারবেন না। বিজ্ঞপ্তিতে এও উল্লেখ করা হয় যে, উদীচী কেন্দ্রীয় কমিটি যুক্তরাজ্য উদীচীকে ছাড়া অন্য কাউকে এখানে উদীচীর নামে সংগঠন করার অনুমতি দিতে পারবে না। উদীচী যুক্তরাজ্যের অনুমতি ছাড়া যদি কেউ উদীচীর নাম ব্যবহার করে সংগঠন করেন বা চেষ্টা করেন তাহলে এটি হবে সম্পূর্ণ বে-আইনী। সংগঠনের পক্ষ থেকে বলা হয়, আমরা এই মর্মে সকলের অবগতির জন্য জানাচ্ছি যে, যদি আমাদের অনুমতি ছাড়া বাংলাদেশ ও বৃটেনের আইন বহির্ভূত বে-আইনী কাজে লিপ্ত হন তাহলে আমরা তাদের বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থা নিতে বাধ্য হবো। যুক্তরাজ্য উদীচী বৃটেনে বাংলা সংস্কৃতি বিকাশে কমিউনিটির আর্থিক উন্নয়নে পূর্বের মতো ভবিষ্যতেও বলিষ্ঠ ভূমিকা রাখার দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করে জানানো হয়, আমরা আগামী দিনগুলোতেও এই প্রক্রিয়া বৃটেনের মাটিতে রেখে যাবো। এই প্রক্রিয়ায় বৃটেনের সংবাদপত্র, ইলেক্ট্রনিক মিডিয়া, কবি, শিল্পী, সাংবাদিকদের সহযোগিতা কামনা করা হয়।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

Back to top button
Close
Close