নিউজবাংলাদেশহোম

খালেদা জিয়া বন্দি থাকার কারণেই বিশ্ব জনমত আমাদের পক্ষে এসেছে: যুক্তরাজ্য বিএনপি

সুরমা প্রতিবেদন।লন্ডন, ৭জুন। জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরাম যুক্তরাজ্য শাখার প্রেস ব্রিফিংয়ে নেতারা বলেছেন, পদ্মা সেতু থেকে খালেদা জিয়াকে ফেলে দেওয়ার হত্যার হুমকি ফৌজদারি অপরাধ সাবেক প্রধানমন্ত্রী কে হত্যার হুমকির অপরাধে একদিন অবশ্যই শেখ হাসিনার বিচার হবে বলে তারা আশাবাদ ব্যক্ত করেন।


প্রধানমন্ত্রী কতৃক খালেদা জিয়াকে পদ্মাসেতু থেকে ফেলে হত্যার হুমকির প্রতিবাদে লন্ডনের স্থানীয় একটি রেস্তোরাঁয় মঙ্গলবার এই প্রেস ব্রিফিংয়ে মূল বক্তব্য উপস্থাপন করেন জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের সভাপতি ব্যারিস্টার মোহাম্মদ শাহজাহান।ফোরামের সাধারণ সম্পাদক হামিদুল হক আফিন্দী লিটনের পরিচালনায় অন্যান্যের মধ্যে সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন, যুক্তরাজ্য বিএনপি’র সভাপতি এমএ মালিক ও সাধারণ সম্পাদক কয়ছর আহমদ। খালেদা জিয়ার মুক্তির লক্ষ্যে বিএনপি বড় ধরনের কোনো আন্দোলন সংগঠিত করেছে কিনা প্রশ্নের উত্তরে যুক্তরাজ্য বিএনপির সভাপতি এমএ মালিক বলেন, খালেদা জিয়া জেলে থাকার কারণেই বিশ্ব জনমত আমাদের পক্ষে এসেছে। এই সরকারের বিরুদ্ধে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক ফোরাম ও বিভিন্ন রাষ্ট্র একের পর এক ব্যবস্থা নিচ্ছে।

যুক্তরাজ্য বিএনপির সাধারণ সম্পাদক কয়সর আহমেদ অপর এক প্রশ্নের জবাবে বলেন, এর আগে প্রধানমন্ত্রী লন্ডনে হোটেল পাওয়ার জন্য তাদের নেতা তারেক রহমানের সহযোগিতা চাইতে বাধ্য হয়েছিল। পদ্মাসেতু থেকে খালেদা জিয়াকে ফেলে হত্যার হুমকির পর অনুরোধ করেও প্রধানমন্ত্রী লন্ডনে অবস্থানের কোন সুযোগ পাবেন না। শুধু লন্ডন নয় বিশ্বের অন্যান্য শহরেও শেখ হাসিনাকে বিএনপিকর্মীরা অবাঞ্চিত করবে।
জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরাম দেশে আইনের শাসনের অবসান ঘটিয়ে দলীয় দু:শাসন কায়েমের জন্য সরকারের তীব্র সমালোচনা করে বলেন, সরকার সকল ক্ষেত্রে বিচার অঙ্গনেও দুর্নীতি এবং লুটপাট আর সকল ধরনের বেআইনি কর্মকাণ্ড প্রতিষ্ঠা করেছে। আইনজীবী ফোরাম দেশে এবং দেশের বাইরে বিবেকবান সকল মানুষের প্রতি বাংলাদেশে গণতন্ত্র, আইনের শাসন ফিরিয়ে আনার ক্ষেত্রে হাসিনা সরকারের পতনে ভূমিকা রাখার আহ্বান জানান। প্রেস ব্রিফিংয়ে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিএনপি নেত্রী ফেরদৌস রহমান,এডভোকেট আমির হোসেন মানিক মুক্তিযোদ্ধা আবু সাদেক হাওলাদার, মুজিবুর রহমান, পারভেজ মল্লিক,সলিসিটর একরামুল হক মজুমদার ও ব্যারিস্টার নাসের খান।

ট্যাগ

সম্পরকিত প্রবন্ধ

Back to top button
Close
Close