ব্রেক্সিটের পাশাপাশি নারীঘটিত নানা কেলেঙ্করিতে জর্জরিত প্রধানমন্ত্রী বরিস, এবার উরু চেপে ধরার অভিযোগ তুলেছেন এক নারী সাংবাদিক

নিউজ

সুরমা প্রতিবেদন
লণ্ডন, ২ অক্টোবর – ব্রেক্সিটে উত্তপ্ত ব্রিটিশ রাজনীতির চরম মুহূর্তে প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব নিয়ে মোটেই স্বস্তিতে কাটছে না প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের। ব্রেক্সিট কার্যকরে কোনো ধরনের সহযোগিতা পাচ্ছেন না ইইউ লিডার কিংবা নিজ দেশের রাজনীতিকদের। ইতোমধ্যে ইইউ দেশগুলোতে বা সফর করেও কোনো সায় পাননি তিনি। এছাড়া ‘নো ডি’ ব্রেক্সিট কার্যকরে কঠিন বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে পার্লামেন্ট। বিরোধীদলসহ নিজ দলের এমপিদের নো ডিল ব্রেক্সিটে চরম অনীহায় প্রায় পর্যদুস্ত অবস্থা যখন প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের ঠিক তখনই একের পর এক বেরিয়ে আসছে নারীঘটিত নানা কাহিনী।

প্রধানমন্ত্রী হিসেবে অভিসিক্ত হওয়ার ঠিক আগ মুহূর্তে গার্লফ্রে-ের সাথে ঝগড়া করার কাহিনী মূলধরার মিডিয়াসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বেশ ঝড় তোলে। সম্প্রতি ল-ন মেয়র থাকাকালীন আমেরিকান এক টেক-ইন্টারপ্রেনার সাবেক বান্ধবীকে ১শ হাজার পাউ-ের গ্রাণ্ট পাইয়ে দেওয়ার অভিযোগ ওঠে তাঁর বিরুদ্ধে। যদি তিনি তা অস্বীকার করে আসছেন। কিন্তু তা আলোচনা অব্যাহত আছে। সেই আলোচনার রেস কাটতে না কাটতে এবার এক নারী সাংবাদিক অভিযোগ তাঁর বিরুদ্ধে যৌন কেলেঙ্কারির গুরুতর অভিযোগ তুলেছেন। অভিযোগে ওই নারী সাংবাদিক বলেন, প্রায় দুই দশক আগে একটি কনফারেন্সে একই টেবিলে বসা বরিস জনসন টেবিলের নিচ দিয়ে ওই নারীর উরু চেপে ধরেছিলেন। এনিয়ে বিভিন্ন মিডিয়ার মুখোমুখি হ হয়ে জবাবদিহী হতে হচ্ছে প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনকে। তিনি বরাবরের মতো এই ঘটনাকে অস্বীকার করলেও এনিয়ে আলোচনা থামছে না।