নিউজ

হুইলচেয়ারে ভোটারদের দ্বারে দ্বারে কাউন্সিলার প্রার্থী শাহ সোহেল

।। কাইয়ূম আবদুল্লাহ ।।
লণ্ডন, ২৩ মার্চ : শাহ সোহেল আমীন। টাওয়ার হ্যামলেটস বারার অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ হোয়াইটচ্যাপেল ওয়ার্ডের বিপুল ভোটে নির্বাচিত কাউন্সিলার। আসছে ৫ মে‘র নির্বাচনেও লেবার দলীয় কাউন্সিলার প্রার্থী হয়ে আবার প্রতিদ্বন্দ্বিতায় অবতীর্ণ হয়েছেন। জনপ্রতিনিধি ছাড়াও তাঁর আরো অনেক পরিচিতি রয়েছে। বন্ধুমহল ও পরিচিতজনদের কাছে কাউন্সিলার ছাড়াও কবি, গীতিকার তথা লেখক হিসেবেও বেশ পরিচিত ও সমাদৃত। প্রচুর প্রাণচাঞ্চল্যের অধিকারী সোহেল একজন তরুণতম জনপ্রতিনিধি হিসেবে ইতোমধ্যে টাওয়ার হ্যামলেটস বারার জনগণের হৃদয়ে অবস্থান সৃষ্টিতে সক্ষম হয়েছেন। প্রথমবার কাউন্সিলার নির্বাচিত হয়ে নিজ ওয়ার্ড হোয়াইটচ্যাপেলের মানুষের সুখ—দুখ তথা নিত্যপ্রয়োজনে পাশে থেকে নিজেকে যেভাবে নিয়োজিত রেখেছেন তাতে তিনি আগামীতেও জনসাধারণের ভালোবাসায় সিক্ত হবেন বলে দৃঢ় আশাবাদী। নির্বাচনকে সামনে রেখে টাওয়ার হ্যামলেটস বারা বৃটেনের অন্য যেকোনো এলাকা থেকে ব্যতিক্রম। নির্বাচনী প্রচারণায় বিপুলসংখ্যক বাংলাদেশী অধ্যুষিত এই বারায় বরাবরের মতো উৎসবমুখর আবহ বিরাজ করছে। সদলবলে সবাই ব্যাপক প্রচারণা চালিয়ে গেলেও শাহ সোহেলের প্রচারণার সঙ্গী হুইলচেয়ার। এই হুইলচেয়ারে করেই ভোটারদের দ্বারে দ্বারে সাধ্যমতো যাওয়ার চেষ্টা করছেন। কিন্তু দুর্ঘটনার শিকার হয়ে শারীরিক কারনে সবার নিকট পৌঁছতে পারছেন না। তবু সবার সুখ—দুখে পাশে থেকে যতটুকু ভালোবাসা অর্জনে সক্ষম হয়েছেন, তাতে তিনি আশাবাদী বারার বাসিন্দারা দ্বিতীয়বার তাকে নির্বাচিত করে তাদের সেবার সুযোগ দেবেন।
আসছে ৫ মে‘র নির্বাচনে শাহ সোহেল হোয়াইটচ্যাপেল ওয়ার্ডে আবার লেবার দলের কাউন্সিলার প্রার্থী মনোনীত হয়েছেন। প্রথবারের মতো এবারও তিনি দলের সদস্যদের বিপুল সমর্থনে মনোনয়ন লাভ করেন। কিন্তু নির্বাচনী ক্যাম্পেইনে চরম প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করছে তাঁর সাময়িক অসুস্থতা। একটি ফ্রেণ্ডলি ফুটবল ম্যাচ খেলতে গিয়ে পায়ে মারাত্মক আঘাতপ্রাপ্ত হন। যার ফলে অনেকদিন তাকে বিছানায় পড়ে থাকতে হয়। ডাক্তাররা অনেক পরীক্ষা—নিরীক্ষা পর পায়ের হাঁটুর লিগামেন্ট ছিঁড়ে যাওয়ার বিষয়টি খুঁজে পান। অতঃপর অপারেশন করা হয়। কিন্তু আপাতত তাকে হুইলচেয়ারেই চলাফেরা করতে হচ্ছে। কিছুদিনের মধ্যে স্বাভাবিক জীবনে ফিরবেন বলে ডাক্তাররা আশাবাদী। কিন্তু নির্বাচন খুব কাছাকাছি হওয়ায় তাকে হুইলচেয়ারেই ভোটারদের দ্বারে দ্বারে যেতে হচ্ছে। সমস্যা হলো হুইলচেয়ারে থাকার কারনে গ্রাউণ্ডে যারা বাস করেন তাদের সাথে দেখা ও কথা বলতে পারলেও বহুতল বিশিষ্ট ফ্ল্যাট এবং অ্যাপার্টমেন্টের বাসিন্দাদের সাথে ইচ্ছে থাকা সত্ত্বেও কথা বলা বা দেখা করা সম্ভব হচ্ছে না। কারণ অনেক ফ্ল্যাট ও অ্যাপার্টমেন্টে লিফট নেই, আবার লিফট থাকলেও অনেক সময় তা কাজ করে না। তাই যেসব বিল্ডিং—এ লিফ্ট নেই বা লিফ্ট থাকলেও অকেজো সিঁড়ি বেয়ে ফ্লাট বা এপার্টমেন্টগুলোর উপরে না যেতে পারায় অনেক বাসিন্দার সাথে পরিচিত হওয়া বা ভোট চাওয়ার সুযোগ থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন কাউন্সিলা প্রার্থী ও বর্তমান কাউন্সিলার শাহ সোহেল। তবে হুইলচেয়ারে করেই প্রতিদিনই যোগ দিচ্ছেন দলীয় ও ব্যক্তিগত ক্যাম্পেইনে। সাময়িক অসুস্থতা বাধা হয়ে দাঁড়ালেও বিগতদিনে বারার জনগণের পাশে থেকে তাদের যেকোনো সমস্যা সমাধানে সক্রিয় সোহেল এবারও ভোটারদের সমর্থন পাবার ব্যাপারে আশাবাদী।
শাহ সোহেল সুরমার সাথে আলাপকালে তাঁর অসুস্থতা ও ক্যাম্পেইনের অগ্রগতি জানিয়ে বলেন, হোয়াইটচ্যাপেল ওয়ার্ডের সর্বসাধারণের কাছে আমি চির কৃতজ্ঞ। গত নির্বাচনে তাকে মনোনয়ন দিয়ে এবং নির্বাচিত করে বারার জনসাধারণের খেদমত করার সুযোগ দানের জন্য কমিউনিটির নেতৃবৃন্দসহ তাঁর সাংবাদিক—সাহিত্যিক বন্ধুদের প্রতি বিশেষভাবে কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন সোহেল। এবার নির্বাচিত হলে তিনি অতীতের মতো এলাকার বাসিন্দাদের সুবিধা—অসুবিধায় পাশে থাকারও প্রতিশ্রম্নতি ব্যক্ত করেন। 
সোহেল বলেন, গত নির্বাচনের আগে আমি অনেকের দরজায় অনেকবার গিয়েছি ভোট দেওয়ার অনুরোধ করেছি, রাস্তা—ঘাটে বিরক্ত করেছি এবং বারার বাসিন্দারাও আমাকে সুন্দরভাবে নিয়েছেন ও নির্বাচিত করেছেন সেজন্য আমি তাদের কাছে চির—কৃতজ্ঞ। কিন্তু এবারে আমি অত্যন্ত দুঃখের সহিত জানাচ্ছি, আমার পায়ের তিনটি লিগামেন্ট এবং মিনিস্কাটস সার্জারির জন্য আমি সবার সাথে সাক্ষাৎ করতে পারছি না। অনেকের বাসার দরজার কড়া নাড়তে পারছে না অনেকের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে যেতে পারছিনা। অনেক মসজিদে ঢুকতে পারছিনা। যেখানে লিফট নেই সিঁড়ি বেয়ে উপরে উঠতে পারছিনা এর জন্য আন্তরিকভাবে দুঃখিত। এমতাবস্থায়ও যে আমাকে প্রিয় হোয়াইটচ্যাপেলের লেবার পার্টির মেম্বারবৃন্দ এবং এই ওয়ার্ডের বাসিন্দারা সহযোগিতা করে লেবার পার্টির মনোনয়ন পেতে সাহায্য করেছেন এজন্য আবারো আপনাদের কাছে কৃতজ্ঞ।
আমি অত্যন্ত বিনয়ের সঙ্গে আপনাদের কাছে অনুরোধ করতে চাই, আগামী ৫ মে‘র নির্বাচনে ২০১৮ এর নির্বাচনে যেভাবে সমর্থন দিয়ে জয়যুক্ত করিয়েছেন, একইভাবে এবারও আপনারা সমর্থন করবেন। লেবার পার্টির প্রতীকে ভোট দিয়ে আমাকে ও আমার বাকী টিম মেম্বার এবং মেয়র জন বিগসকে ভোট দিয়ে জয়যুক্ত করার অনুরোধ করছি।
সোহেল বাসিন্দাদের প্রতিশ্রম্নতি ব্যক্ত করে বলেন, আমি আশাকরি আপনারা আমার কথাগুলো ফেলে দিবেন না। আমিও কথা দিচ্ছি, আগের মতোই আমার অফিস, ঘর এবং কাউন্সিল সার্জারি আপনাদের জন্য সবসময় খোলা থাকবে। আগামী নির্বাচনের পর যাতে আমাদের নতুন হোয়াইটচ্যাপেল কাউন্সিল ভবনে আপনাদের কাউন্সিলর হিসেবে স্বাগত জানাতে পারিÑ সেজন্য সবার সমর্থন ও দোয়া প্রত্যাশী।
উল্লেখ্য, গত ৮ নভেম্বর অনুষ্ঠিত হয়েছিলো স্পিকার সিলেক্ট ১১ বনাম ৫০ এক্টিভ ক্লাবের মধ্যে ফুটবল টুর্ণামেন্ট। উক্ত ফ্রেণ্ডলি ফুটবল টুর্ণামেন্টে সহকর্মী কাউন্সিলারদের সাথে স্পিকার সিলেক্ট ১১ টিমের একজন হয়ে খেলায় অংশ নিয়েছিলেন শাহ সোহেল। খেলার এক পর্যায়ে বল নিয়ে দৌড়ের সময় পা পিছলে পড়ে গিয়ে আহত হন। বিষয়টি যে এতো গুরুতর পর্যায়ে যাবে এবং তাকে শেষ পর্যন্ত হুইল চেয়ারে চলাফেরা করতে হবে— তা সোহেল কিংবা তাঁর শুভাকাঙক্ষীরা কল্পনাও করেননি। কারণ প্রথমদিকে দেখতে তেমন গুরুতর মনে হয়নি এবং কয়েকদিন পর এক্সরেতেও কিছু ধরা পড়েনি। কিন্তু কয়েকদিন পরও পায়ের ব্যাথা না কমায় এমআরআই করে ডাক্তাররা হাটুর লিগামেন্ট ছিড়ে যাওয়া ও মিনি স্কাচট ভেঙ্গে যাওয়ার বিষয়টি ধরা পড়ে। অতঃপর অপারেশন করতে হয়। অপারেশনের পর অনেকদিন অতিবাহিত হয়ে গেছে কিন্তু এখনো আশানুরূপ কোনো উন্নতি হয়নি। তাই হুইলচেয়ারই তাঁর নিত্য সঙ্গী হয়েছে। অবস্থাদৃষ্টে মনে হচ্ছে নির্বাচন পর্যন্ত হুইলচেয়ারে করেই তাকে চলাফেরার পাশাপাশি কঠিন ভোটযুদ্ধটিও সারতে হবে। তবে আবার তিনি যে সুস্থ হয়ে আগের মতোই স্বাভাবিক চলাফেরা এবং তাকে অর্পিত দায়িত্ব পালনেও সক্ষম হবেন, সেব্যাপারে তাঁর চিকিৎসকসহ তিনি পূর্ণ আশাবাদী।

Sheikhsbay

Related Articles

Back to top button
Close
Close