নিউজ

এই প্রথম দেশের বাইরে তিন সংস্করণে সিরিজ জয় বাংলাদেশের

সুরমা ডেস্ক।। এই প্রথম দেশের বাইরে ক্রিকেটের তিন সংস্করণেই সিরিজ জিতল বাংলাদেশ। টেস্ট ‍ও ওয়ানডে সিরিজ জিতার পর টি-টোয়েন্টি সিরিজ ও জিতেছে বাংলাদেশ। টি-টোয়েন্টি সিরিজের শেষ ম্যাচে বাংলাদেশকে রেকর্ড গড়ার চ্যালেঞ্জ দিয়েছিল জিম্বাবুয়ে। হারারে স্পোর্টস ক্লাব মাঠে রোববার (২৫ জুলাই) শেষ টি-টোয়েন্টিতে ৫ উইকেটে জিতে সেই চ্যালেঞ্জ ভালো ভাবে উতরে যায় সফরকারীরা। সিরিজের প্রথম টি–টোয়েন্টিতে ৮ উইকেটে জিতে বাংলাদেশ। দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে জিম্বাবুয়ে জিতে ২৩ রানে।

সিরিজের তৃতীয় ও শেষ টি–টোয়েন্টিতেও টসে জিতে আগে ব্যাটিং করে নিজেদের মাঠে ১৯৩ রানের সর্বোচ্চ রেকর্ড স্কোর করে স্বাগতিক জিম্বাবুয়ে। এই রেকর্ড স্কোর ছাড়িয়ে যায় বাংলাদেশ চার বল বাকি থাকতে। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে বাংলাদেশের আগের সর্বোচ্চ রান তাড়া করে জয় ছিল দেশের মাটিতে, ২০১৬ সালে ১৬৩ রান পেরিয়ে। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে নিজেদের সর্বোচ্চ রান তাড়া করে এই সংস্করণে এটি বাংলাদেশের চতুর্থ সিরিজ জিতা।    

সিরিজ জয়ের ম্যাচে এদিন হারারে স্পোর্টস ক্লাব মাঠে জিম্বাবুয়ের ১৯৪ রানের জবাবে ওপেনার সৌম্য সরকার খেলেন সবচেয়ে বড় ইনিংসটি। ৪৯ বলে ৯ চার ও এক ছয়ে ৬৮ রান করেন তিনি। মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ৩৪ ও সাকিব আল ২৫ রান করেছেন। শেষ দিকে ঝড়ো ইনিংস এসেছে শামিম পাটোয়ারির ব্যাট থেকে। ১৫ বলে ৩১ রান করে অপরাজিত থাকেন এই অলরাউন্ডার। জিম্বাবুয়ের হয়ে দুটি করে উইকেট নেন ব্লেসিং মুজারাবানি ও লুক জংউই।

এর আগে টস জিতে ১৯৩ রান করে জিম্বাবুয়ে। জিম্বাবুয়ের হয়ে সর্বোচ্চ ৫৪ রান করেছেন ওয়েসলে মেধেভেরে। হারারে স্পোর্টস ক্লাবে শুরু থেকেই বাংলাদেশের বোলারদের চাপে রাখার চেষ্টা করেছে জিম্বাবুয়ে। মারমুখী ব্যাটিংয়ে মারুমানি ২৭ রান করে আউট হলেও রেগিস চাকাভা খেলেন সবচেয়ে বিধ্বসী ইনিংসটি। ২২ বলে ৪৮ রান করে সৌম্য সরকারের শিকার হন তিনি। শূন্য রানে সিকান্দর রাজাও সৌম্যের শিকারে পরিণত হন। ওয়েসলে মেধেভেরে ৩৬ বলে ৫৪ রানের ইনিংস খেলে আউট হন সাকিব আল হাসানের বলে। তার ইনিংসে ছিল ৬টি চারের মার। আগের ম্যাচে ৭৩ রান এসেছিল তার ব্যাট থেকে।

শেষ দিকে ডিওন মেয়ার্সের ২৩ ও রায়ান বার্লের ১৫ বলে ৩১ রানে ভর করে ১৯৩ রান তুলে স্বাগতিকরা। বাংলাদেশের হয়ে ২টি উইকেট নেন সৌম্য সরকার। সাকিব আল হাসান, শরিফুল ইসলাম ও সাইফউদ্দিন নিয়েছেন একটি করে উইকেট।    

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

জিম্বাবুয়ে: ২০ ওভারে ১৯৩/৫ (মারুমানি ২৭, মাধেভেরে ৫৪, চাকাভা ৪৮, রাজা ০, মায়ার্স ২৩, বার্ল ৩১*, জঙ্গুয়ে ১*; তাসকিন ২-০-২৮-০, সাইফ ৪-০-৫০-০, শরিফুল ৪-০-২৭-১, সাকিব ৪-০-২৪-১, নাসুম ৩-০-৩৭-০, সৌম্য ৩-০-১৯-২)।

বাংলাদেশ: ১৯.২ ওভারে ১৯৪/৫ (নাঈম ৩, সৌম্য ৬৮, সাকিব ২৫, মাহমুদউল্লাহ ৩৪, আফিফ ১৪, শামীম ৩১*, সোহান ১*; রাজা ১-০-১৩-০, চাতারা ৪-০-২৭-০, মুজারাবানি ৪-০-২৭-২, মায়ার্স ৪-০-৪২-০, জঙ্গুয়ে ৩-০-৪২-২, মাসাকাদজা ৩.২-০-৩৭-১)।

ফল: বাংলাদেশ ৫ উইকেটে জয়ী
সিরিজ: ৩ ম্যাচের সিরিজে ২-১ ব্যবধানে জয়ী বাংলাদেশ
ম্যান অব দা ম্যাচ: সৌম্য সরকার
ম্যান অব দা সিরিজ: সৌম্য সরকার

সম্পরকিত প্রবন্ধ

Back to top button
Close
Close