নিউজ

বৃটেনে করোনা বিধিনিষেধমুক্ত ঈদ: রৌদ্রোজ্জ্বল আবহাওয়ায় আনন্দঘন উদযাপন

।। সুরমা প্রতিবেদন ।।
লণ্ডন, ২৩ জুলাই : বিভিন্ন কারণে এবারের ঈদ উদযাপন ছিলো আনন্দঘন ও উৎসমুখর। আগেরদিনই অবসান হয় নানা বিধিনিষেধের দীর্ঘ লকডাউন। তার উপর ব্রিটিশ সামারের রৌদ্রোজ্জ্বল দিন। সবমিলিয়ে তাই এবারের ঈদ ছিলো ব্রিটিশ মুসলমানদের কাছে ব্যতিক্রমী। বিধিনিষেধহীন মুক্তভাবে ঈদুল আজহা উদযাপন করতে পেরে সবার চোখেমুখে ছিলো আনন্দের ঝিলিক। কোলাকুলি করেছেন একে অপরের সঙ্গে। তবে কোনো বিধিনিষেধ না থাকলেও অনেকেও ছিলেন মাস্ক পরিহিত। সামাজিক দূরত্বও মেনে চলেছেন অনেকে।
করোনাভাইরাসের ভয়ংকর ডেল্টা সংক্রমণের মধ্যেই ১৯ জুলাই বিধিনিষেধ তুলে নেয় বৃটেন। এতে বৃটেনে বিভিন্ন মসজিদ ও খোলা মাঠে অনুষ্ঠিত ঈদ জামাতগুলোতে নেমেছিলো মুসল্লিদের ঢল। লণ্ডনের বিভিন্ন পার্কের খোলা মাঠে অনুষ্ঠিত হয়েছে ঈদ জামাত।

বাংলাদেশী অধ্যুষিত পূর্ব লণ্ডনের ইস্ট লণ্ডন মসজিদে পবিত্র ঈদুল আযহা উপলক্ষে মোট ৪টি জামাত অনুষ্টিত হয়েছে। প্রতিটি জামাতে প্রায় শত শত মুসল্লি অংশ নেন।
একইভাবে ব্রিকলেন মসজিদেও অনুষ্ঠিত হয় মোট ৪টি জামাত। এই দুটো মসজিদেই মূলত জামাত আদায় করেন কমিউনিটির নেতৃস্থানীয় ব্যক্তিবর্গ।

পূর্ব লণ্ডন ছাড়াও গ্রেটার লণ্ডনের রেডব্রিজ, ডেগেনহাম ও নিউহ্যামসহ বিভিন্ন এলাকার মসজিদ ও খোলা মাঠে অনুষ্ঠিত হয় ঈদের জামাত। প্রতিটি জামাতে বিশ্বমুসলিমের শান্তি ও সমৃদ্ধি কামনাসহ করোনা মুক্তির জন্য অনুষ্ঠিত হয় বিশেষ মোনাজাত। খোলা মাঠে ঈদের নামাজ ছিলো সবার কাছে বেশী আনন্দের। পূর্ব লণ্ডনের মাইলএণ্ড স্টেডিয়াম এবং ইলফোর্ড এলাকার ভ্যালেন্টাইন পার্কে বিপুলসংখ্যক মুসল্লির সমাবেশ ঘটে। পুরুষের পাশাপাশি মহিলা ও শিশু-কিশোরাও এসব ঈদ জামাতে। বিশেষ করে মাইলএণ্ড পার্ক পুরোটাই পূর্ণ হয়ে যায়।
পূর্ব লণ্ডনের বাঙালি অধ্যুষিত এলাকায় ঈদের আমেজ ছিল অনেকটা বাংলাদেশের মতো। এছাড়াও একে অন্যের বাড়িতে ঈদ বেড়ানো ও দাওয়াত খাওয়া আলাদা আমেজ এনে দেয়।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

Back to top button
Close
Close