নিউজ

আলোকচিত্রী জি আর সোহেলের বাসায় চুরি

লণ্ডন, ৯ জুন : বৃটেনে বাংলা গণমাধ্যম জগতে অত্যন্ত পরিচিতমুখ আলোকচিত্রী জি আর সোহেলের বাসায় চুরির ঘটনা ঘটেছে। গত ৪ জুন শুক্রবার সন্ধ্যার দিকে এ ঘটনা ঘটে। পরিবারের সবাই বাইরে থাকার সুযোগে ঘরের পেছনের গার্ডেন দিয়ে বাথরুমের জানালা ভেঙ্গে ভেতরে ঢুকে চোরেরা তাঁর বাড়ী থেকে স্বর্ণালঙ্কার, নগদ অর্থ ও কম্পিউটারসহ মূল্যবান জিনিস-পত্র নিয়ে গেছে। ওইসব মূল্যবান ও দামী জিনিসপত্র খুঁজতে গিয়ে আলমারি, ড্রয়ার বিছানাপত্রসহ সকল আসাবাপত্র তছনছ করে রেখে যায় চোর।

জি আর সোহেল পূর্ব লণ্ডনের ডেগেনহাম হিথওয়ের বাসিন্দা। স্ত্রী ও দুই সন্তান নিয়ে ওই বাসায় থাকেন তিনি। তিনি ল-ন বাংলা প্রেসক্লাবের একজন সক্রিয় সদস্য।
জি আর সোহেল সাংবাদিকদের জানান, শুক্রবার বিকালের দিকে পরিবার নিয়ে তিনি বাইওে বেড়াতে গিয়েছিলেন। ফেরেন রাত ১১টার পর। বাসায় ফিরেই দেখেন সবকিছু এলোমেলো। বুঝতে অসুবিধা হয়নি বাসায় চুরি হয়েছে। তিনি জানান, বাসা থেকে নগদ অর্থ, স্বর্ণালঙ্কার, কম্পিউটারসহ তাদের পাসপোর্টগুলোও নিয়ে গেছে চোরেরা।
তাঁর ধারণা, বাসার পেছনের বাগান দিয়ে এসে বাথরুমের জানালা দিয়ে প্রবেশ করেছে চোর। বাগানে এবং বাথটাবে পায়ের চিহ্ন দেখে তাঁর এমন ধারণা হয়েছে। চুরির বিষয়টি সাথে সাথে তিনি পুলিশকে জানিয়েছেন। পুলিশ কয়েক দফা বাসা পরিদর্শন করেছে। আংগুলের ছাপসহ নানা আলামত সংগ্রহ করেছে পুলিশ। তবে এখন পর্যন্ত তাঁর চুরি যাওয়া কোনো কিছুই তিনি ফেরত পাননি। কাউকে গ্রেফতারের বিষয়েও কিছু জানা যায়নি।

চুরির ঘটনা জানাজানি হলে সাংবাদিক ও শুভাকাঙক্ষীদের অনেকেই ছুটে যান জি আর সোহেলের সঙ্গে দেখা করতে। সকালেই তাদের দেখতে ছুটে যান লণ্ডন বাংলা প্রেসক্লাবের ট্রেজারার আসম মাসুম। দুপুরে সাপ্তাহিক সুরমার বার্তা সম্পাদক ও প্রেসক্লাবের নির্বাহী সদস্য আবদুল কাইয়ূম গিয়ে দেখে আসেন। রাতে দেখতে যান সাপ্তাহিক দেশ সম্পাদক ও ল-ন বাংলা প্রেসক্লাবের সদস্য তাইসির মাহমুদ। এছাড়া সহকর্মী আলোকচিত্রী ও প্রেসক্লাব সদস্য খালিদ হোসেইন, এখলাসুর রহমান পাক্কুসহ অনেকেই তাঁর বাড়ীতে দেখা করতে ছুটে যান। তারা সবাই তাদের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে জি আর সোহেলের বাসায় চুরির ঘটনার বিবরণ দিয়ে সহমর্মিতা প্রকাশ করেন।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

Back to top button
Close
Close