নিউজ

করোনা গবেষণায় সমর্থনের আহ্বান

ইম্পেরিয়াল কলেজ চিকিৎসক গবেষকদের জরিপ প্রকল্প

।। সুরমা প্রতিবেদন ।।
লণ্ডন, ১ ডিসেম্বর – সিনিয়র কার্ডিওলজিস্ট, চিকিৎসক, স্বাস্থ্য মনোবিজ্ঞানী এবং চিকিৎসা শিক্ষার্থী সহ একাধিক প্রতিভাবান গবেষক সমন্বয়ে কোভিড -১৯ এ বাংলাদেশ কমুনিটির মধ্যে উচ্চ মৃত্যুর মৃত্যুর কারণগুলি খুঁজতে এই গবেষণার উদ্যোগ।
ইম্পেরিয়াল কলেজ চিকিৎসক-গবেষকদের এই প্রকল্পে সাপ্তাহিক সুরমা কমিউনিটি সহযোগী হিসেবে ভূমিকা রাখছে।

এই গবেষণার সঙ্গে সম্পৃক্ত চিকিৎসক এবং গবেষকরা অন্যান্য ভূতপূর্ব একই ধরণের অন্য কয়েকটি গবেষণায়ও অবদান রেখেছেন । গবেষকদের মতে, যদি বিএমই সম্প্রদায়ের মধ্যে করোনার বিপুল সংক্রমণের কারণ বের করা যায় তাহলে শুধু এই মহামারীই শুধু নয়, বরং অনেক স্বাস্থ্য ঝুঁকি মোকাবেলায় তা অবদান রাখবে।

কোবিড-১৯ সচেতনতা:
বিএমই সম্প্রদায়ের মধ্যে ঝুঁকি ও জাতিগত প্রভাব সম্পর্কিত সমীক্ষা’ শীর্ষক এই জরীপ/গবেষণার তথ্য সংগ্রহ ও অন্যান্য দিক নিয়ে গবেষকদের সাথে একটি সাক্ষাৎকার অনুষ্ঠিত হয় গত শনিবার। এতে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, মেডিসিন অনুষদের ক্লিনিকাল প্রভাষক ড. মনজুর শওকত, ইম্পেরিয়াল কলেজ লণ্ডনের কার্ডিয়াক সার্জারির অধ্যাপক প্রফেসর প্রকাশ পাঞ্জাবি, মেডিকেল শিক্ষার্থী মনিরা খাতুন, রেজওয়ানা রহমান এবং সুরমা সম্পাদক শামসুল আলম লিটন গবেষণা নিয়ে আয়োজিত এই সেশনে যোগ দেন।

বিএমই সম্প্রদায়ের ব্যাপক অংশগ্রহণ ও সহায়তার লক্ষ্যে সবার প্রতি সমর্থনের আহ্বান জানানো হয়। মহামারী এবং ভবিষ্যতের কমিউনিটি স্বাস্থ্য লড়াইয়ের জন্য কীভাবে ডেটা ব্যবহার করা হবে তা আলোচনায় স্থান পায় । এই প্রকল্পের তথ্য এবং সাপ্তাহিক আপডেটগুলি সরবরাহ করতে www.carebame.com নামে একটি ওয়েবসাইটও চালু করেছে। তারা এই বিষয়ে একটি বিস্তারিত বোঝার জন্য জরিপটি পূরণে সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি অবদান রাখার আহ্বান জানিয়েছেন।

তাঁরা আশা প্রকাশ করেন,এই গবেষণায় প্রাপ্ত তথ্য আগামী বছরগুলিতে অন্যান্য স্বাস্থ্য পরিকল্পনায় উপকারী হবে এবং ভবিষ্যতের অনেক প্রজন্মকে সহায়তা করবে। সমীক্ষাটির প্রশ্নপত্র পূরণে ৫-১০ মিনিট সময় নেয় এবং COVID-19 এর সাথে আপনার অভিজ্ঞতার উপর দৃষ্টি নিবদ্ধ করে। গবেষণা টীম এই ব্যাপারে জানিয়েছেন, যাদের সহায়তার প্রয়োজন তাদেরকে মোবাইল ফোনে (নম্বর- 07764290141) কল করে বা hello@carebame.com এ ইমেল করতে অনুরোধ করা হয়েছে। এছাড়া QR CODE স্ক্যান করেও জরিপটির প্রশ্নপত্র পূরণ করা যাবে। এমনকি অন্যকে ফরোয়ার্ড করেও সকলে এই জরুরি জনস্বাস্থ্য সম্পর্কিত জরীপ/গবেষণায় অবদান রাখতে পারেন।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

Back to top button
Close
Close