নিউজ

উচ্চ-আদালতের রায়: হোম অফিসকতৃর্ক গোপন নীতি প্রয়োগ করে কাউকে আটক ও ফেরত পাঠানো বেআইনি

|| সুরমা প্রতিবেদন ||
লণ্ডন, জুন : যুক্তরাজ্যে বসবাসের অধিকার রয়েছে এমন লোকদের বিমান ও সমুদ্রবন্দর থেকে আটক করে ফেরত পাঠাবার হোম অফিসের গোপন নীতি উচ্চ আলাদালতে বেআইনী বলে প্রমাণিত হয়েছে। সম্প্রতি এনএইচএস‘র পাওনা পরিশোধ করেননি এমন দুই মহিলা যুক্তরাজ্যে পুনরায় প্রবেশের চেষ্টা করার সময় বারবার আটকের শিকার হয়েছিলেন। ওই দুই মহিলা তাদের সহযোগিতাকারীদের মাধ্যমে আদালতে যাওয়ার পর আদালতের রায়ে তা অবৈধ বলে প্রমাণিত হয়। এই রায়ের মাধ্যমে বিচারক বিমানবন্দর কিংবা সমুদ্রবন্দরে লোকজনদের থামাতে হোম অফিস কতৃর্ক সবধরনের গোপন নীতি প্রয়োগকে অবৈধ বলে ঘোষণা দিয়েছেন। এ সংক্রান্ত সংবাদটি গার্ডিয়ানসহ কয়েকটি ব্রিটিশ সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে।
যাদের কাছে এনএইচএস‘র পাওনা রয়েছে তাদের উপর হোম অফিসের এই নীতিটি প্রয়োগ করার পর শুধুমাত্র তাদের দাতব্য সংস্থা এবং আইনজীবীদের কাছ থেকে সংগৃহীত প্রমাণের মাধ্যমে বিষয়টি উন্মোচিত হয়, যারা বারবার আটক দুই মায়ের মামলার বিরুদ্ধে লড়াই করছেন।

বিমানবন্দরে বর্ডার ফোর্স অফিসারদের কাছে আটকের শিকার ওই দুই মহিলার একজন হচ্ছেন একজন মালি এবং অপরজন আলবেনিয়ান বংশোদ্ভুত। মামলাটি আনা নারীরা যথাক্রমে মালি ও আলবেনিয়ার বাসিন্দা। তম্মধ্যে মালির মহিলাটি এফজিএম থেকে বেঁচে থাকা এবং বেশ কয়েকটি গর্ভপাত এবং একটি মৃত সন্তানের জন্মের কারণে এনএইচএস ঋণ নিয়েছিলেন। এফজিএম-এর শিকার হওয়ার কারণে তার ঋণকে চ্যালেঞ্জ করা হচ্ছে। আর আলবেনিয়ান মহিলা তার এনএইচএস ঋণ পরিশোধ করছেন।
ওই দুই মহিলা পরিবারের সাথে দেখা করার জন্য মাতৃভূমিতে ভ্রমণে গিয়ে ইউকেতে পুনঃপ্রবেশ করার চেষ্টা করার সময় ওই দুই মহিলাকে বিমানবন্দরে আটক করা হয়। কারণ মেটারনিটি কেয়ার বা প্রসূতি যত্নের জন্য এনএইচএস‘র কাছে তাদের যে বকেয়া ঋণ রয়েছে। তবে সে সম্পর্কে তাদেরকে যুক্তরাজ্যে লীভ টু রিমেইন বা স্থায়ী বসবাসের অনুমতি দেওয়ার সময় হোম অফিস অবগত ছিলো।
ওই মহিলাকে তাদের সন্তানসহ অল্প সময়ের জন্য আটক করা হয়েছিলো এবং তারা কখন মুক্তি পাবে তা তারা জানতো না। বর্ডার ফোর্স অফিসাররা তাদের আটক করে এবং তদন্ত করে কারণ তারা হোম অফিস সিস্টেমে এনএইচএস’র ঋণ পরিশোধ না করা হিসাবে চিহ্নিত ছিলো।

প্রকাশিত রায়ে দেখা যায় যে, বিচারপতি মি. চেম্বারলেন খুঁজে পেয়েছেন যে দুই মহিলা এবং তাদের ছোট বাচ্চাদের হোম সেক্রেটারির দ্বারা ন্যায্যতা ছাড়াই মিথ্যাভাবে বন্দী করা হয়েছে। তিনি আরও খুঁজে পান যে সুয়েলা ব্র্যাভারম্যান নারীদের উপর নীতির সমতার প্রভাব বিবেচনা করার জন্য তার দায়িত্ব লঙ্ঘন করেছেন, যারা অসামঞ্জস্যপূর্ণভাবে এনএইচএস চার্জিং দ্বারা আক্রান্ত বলে পরিচিত।
মামলা চলাকালীন হোম অফিসকে নীতির অস্তিত্ব নিশ্চিত করতে এবং এটি প্রকাশ করতে বলা হয়েছিল, কিন্তু তারা তা করতে অস্বীকার করে। অবশেষে তারা নীতিটি প্রকাশ করেছে এবং বলেছে যে এটি পুনরায় লেখা হচ্ছে।

নারীদের পক্ষে রায় দিয়ে বিচারক বিমান ও সমুদ্রবন্দরে লোকজনকে থামানোর জন্য হোম অফিসের অপ্রকাশিত নীতিকে বেআইনি বলে মনে করেন। রায়ে বলাহ হয়েছে যে, যদি এই জাতীয় নীতি প্রকাশ না করা হয় তখন সেটির অপপ্রয়োগের আশঙ্কা থাকে। আর তা কেবলমাত্র বিপুলসংখ্যক ব্যক্তির দ্বারা তাদের নিজ নিজ আইনজীবীদের দেওয়া অ্যাকাউন্টগুলিকে একত্রিত করে বোঝা যায়। ফলাফল হতে পারে যে, বিপুলসংখ্যক লোককে বেআইনিভাবে আটক করা হয় অনুশীলনটি চিহ্নিত করার আগে এবং অবৈধতা প্রকাশ করার আগে। সম্ভবত তখন এটি অনেক সংখ্যক লোকের উপর প্রয়োগ করা হয়েছিল। তবে নীতিমালাটি প্রকাশিত হলে এবং এর অবৈধতা আগে স্বীকৃত হলে সংশ্লিষ্ট সবার জন্য অনেক ভালো হতো।

দুই নারীই রায়কে স্বাগত জানিয়েছেন। আলবেনিয়ান মহিলা, যাকে অন্তত আটবার আটক করা হয়েছিল তিনি বলেছেন, গত আট বছর ধরে যখনই আমরা আমার পরিবারকে দেখতে যখন বাড়িতে বেড়াতে যাই তখনই আমার সন্তানদের সাথে আমাকে আটক করা হয়। এটি আমাদের অভিবাসন নিয়ন্ত্রণের কাছে যাওয়ার ভয় তৈরি করেছিল কারণ আমরা জানতাম না যে তারা আমাদের কতক্ষণ ধরে রাখবে বা এমনকি তারা আমাদের ফেরত যেতে দেবে। আমি সত্যিই স্বস্তি পেয়েছি যে, বিচারক আমাদের সাথে একমত হয়েছেন যে অফিসাররা এভাবে আটকে রাখার ক্ষমতা ব্যবহার করতে পারেন না। একই সাথে আমি স্বাগত জানাই হোম অফিসের নীতি পরিবর্তনের সিদ্ধান্তকে যা আমার মতো লোকেদের জন্য যারা ইউকেতে বছরের পর বছর ধরে আইনত বসবাস করছেন এবং যারা শুধু দেশে ফিরে যেতে চান।

ভাট মারফি সলিসিটরস-এর জ্যানেট ফারেল, যিনি উভয় মহিলার প্রতিনিধিত্ব করেছিলেন, তিনি বলেছেন, আমাদের ক্লায়েন্টদের আটক করা ছিল অপমানজনক এবং বেদনাদায়ক। এই রায় দেখায় যে আটকের মতো জবরদস্তিমূলক ক্ষমতার ব্যবহার সম্পর্কিত নীতিগুলি প্রকাশ করা কতটা গুরুত্বপূর্ণ যাতে ভুক্তভোগীরা সরকারকে আদালতে সঠিকভাবে জবাবদিহি করতে পারে।
একজন সরকারী মুখপাত্র বলেছেন, হোম অফিস এই রায়ের প্রভাবগুলি সাবধানতার সাথে বিবেচনা করছে। সংশোধিত নির্দেশিকা শীঘ্রই আপডেট এবং প্রকাশ করা হবে।

Sheikhsbay

সম্পরকিত প্রবন্ধ

Back to top button
Close
Close