কমিউনিটি নিউজ

জাবির ইতিহাস সৃষ্টি: লণ্ডনে সুবর্ণজয়ন্তীর আন্তর্জাতিক উৎসব

লণ্ডন, ২০ জুলাই।। যুক্তরাজ্যে অনুষ্ঠিত হলো জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় (জাবি)-এর ৫০ বছর পূর্তি উপলক্ষ্যে প্রথম আন্তর্জাতিক উৎসব। জাহাঙ্গীরনগর এলামনাই এসোসিয়েশন ইন ইউকে (জুয়াক)-এর উদ্যোগে গত ১৬ ও ১৭ জুলাই অনুষ্ঠিত এই উদযাপন উৎসবে যুক্তরাজ্য, ইউরোপ ও বাংলাদেশসহ পৃথিবীর বিভিন্ন প্রান্ত থেকে তিন শতাধিক প্রাক্তন ছাত্র-ছাত্রী যোগ দেন। যুক্তরাজ্যের লণ্ডন শহরের একটি অভিজাত হলে অনুষ্ঠিত বাংলাদেশের ঐতিহ্যবাহী ও একমাত্র পূর্ণাঙ্গ আবাসিক এই পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম আন্তর্জাতিক উৎসবে প্রাক্তনদের অভর্থনা জানান রোজিনা হাফিজ।

উৎসবের শুরুতেই শতাধিক প্রাক্তন ছাত্র-ছাত্রীদের নিয়ে জাহানারা আখতার শিমলার নেতৃত্বে ছিল এক বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা। বেলুন উড়িয়ে উৎসবের শুভ সূচনা করেন উৎযাপন পরিষদের চেয়ারম্যান ড. উয়াছিউল ইসলাম, সদস্য সচিব জুবায়ের বাবু এবং বাংলাদেশ থেকে আগত চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ও মাওলানা ভাসানী বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য প্রফেসর ড. মোহাম্মদ আলাউদ্দিন। দুপুরের পর পর কানায় কানায় পূর্ণ হয়ে যায় লণ্ডনের ইম্প্রেশন হল। মোর্শেদ আকতার বাদলের প্রাণবন্ত উপস্থাপনায় স্মৃতিচারণা করেন প্রাক্তনরা। দুপুরের খাবারের পর পর শুরু হয় যুক্তরাজ্যে বেড়ে উঠা নতুন প্রজন্মের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। জুয়াকের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাসুদ হাসান খানের সভাপতিত্বে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় এলামনাই এসোসিয়েশন এবং জুয়াকের যৌথ আলোচনা অনুষ্ঠানের সঞ্চালনা করেন জুয়াকের সাধারণ সম্পাদক ফারুক খান।

এতে প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন ৪র্থ ব্যাচের অর্থনীতির প্রাক্তন ছাত্র এবং ইউনিভার্সিটি অফ কেন্টের প্রফেসর ড. মোহাম্মদ হাসান শিবলী। বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ থেকে আগত জাবির সিনেট সদস্য ও কেন্দ্রীয় এলামনাইয়ের প্রথম যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক শেখ মনোয়ার হোসেন, নরওয়ে থেকে সাদিক হাসান , যুক্তরাষ্ট্র থেকে মোজাম্মেল হক দুলাল, অস্ট্রেলিয়া থেকে খালেদা কায়সার মিনি, জার্মানী থেকে আনিসুল হক এবং যুক্তরাজ্য থেকে গোলাম সারওয়ার। বক্তব্য রাখেন – নুরুল মঈন, আনিসুল হক, সামিনা আখতার কাঞ্চন, জালাল উদ্দিন, শাহিদুন নবী, মিশকাত চৌধুরী ও প্রফেসর ড. আলমগীর কবির।

ড. উয়াছিউল ইসলামের সভাপতিত্বে সুবর্ণজয়ন্তীর মূল অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন জুবায়ের বাবু। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন প্রফেসর ড. মোহাম্মদ আলাউদ্দিন। বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ দূতাবাসের মিনিস্টার পলিটিকাল এ এফ এম জাহিদুল ইসলাম, এস এম পাটোয়ারী, রেজাউল করিম রাজু, জাকির হোসেন ও মাসুদ হাসান খান।

উৎসবের মূল আকর্ষণ ছিল মিশকাত চৌধুরীর সম্পাদনায় ক্রোড়পত্র “সুবর্ণ রেখা”। প্রাক্তনদের লেখায় সমৃদ্ধ এই ক্রোড়পত্র ব্যাপক ভাবে সমাদৃত হয়। অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন লণ্ডনের টাওয়ার হেমলেটস কাউন্সিলের নব্য নির্বাচিত এক্সেকিউটিভ মেয়র লুৎফুর রহমান এবং যুক্তরাজ্যের সংসদের নিউহ্যাম এলাকার এমপি ও সাবেক মন্ত্রী স্টেফেন টিমস।

সন্ধ্যা ৭ টায় “এগিয়ে চলার পঞ্চাশ বছর” সূচনা সংগীত দিয়ে শুরু হয় সাংস্কৃতিক পর্ব। সাহিত্য পালের নির্দেশনায় ফারিয়ার নওমি আঁচল এবং খালেদ পাটুয়ারীর প্রাণবন্ত উপস্থাপনায় এই সংগীতানুষ্ঠানের মূল আকর্ষণ ছিলেন তারেক। যিনি অনুষ্ঠানের সূচনা সংগীত-এর সুর ও কণ্ঠ দিয়ে ইতোমধ্যে ব্যাপক সাড়া ফেলেছেন। তাছাড়া অনুষ্ঠানে ওমর ফারুক, সাজ্জাদ, জুবায়ের বাবু এবং অতিথি শিল্পী লাবনী বড়ুয়া ও তন্বি গান পরিবেশন করেন। রাত ১১টায় তারেকের গানে নেচে গেয়ে উৎসব শেষ করেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাসে প্রথম আন্তর্জাতিক এই উৎসব।

অনুষ্ঠানের সার্বিক দায়িত্বে ছিলেন খালেদ মোহাম্মদ ইবাদ উল্লাহ ইবু, সৈয়দ ইনান , জোতিষ সাহা, আফিয়া নার্গিস, জাহানারা আখতার শিমলা, সাহেদা বানু রুপা, তুষার আহমেদ, তারিকুল আহমেদ, মুকুল ও শম্পা ।

যুক্তরাজ্যে ‘জুয়াকে’র মতো একটি শক্তিশালী সংগঠন থাকায় এই উৎসবটি সফল ভাবে সম্পন্ন করতে পারায় উদযাপন পরিষদের পক্ষ থেকে ‘জুয়াক’ এবং জুয়াকের সকল নেতৃবৃন্দ ও সদস্যদের আন্তরিক ধন্যবাদ এবং কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন ড. ওয়াছিউল ইসলাম ও জুবায়ের বাবু। এখানে উল্লেখ্য যে যুক্তরাজ্যে বসবাসরত জাবির প্রাক্তন ছাত্র-ছাত্রীদের ‘জুয়াক’ই একমাত্র নিবন্ধিত সংগঠন।

নিউজ

সম্পরকিত প্রবন্ধ

Back to top button
Close
Close