নিউজ

আপসানাকে আটকাতে তৎপর স্থানীয় লেবারের একাংশ: ট্রিগার প্রক্রিয়া বন্ধের আহবান

|| সুরমা প্রতিবেদন ||
লণ্ডন, ৩০ জুন : পপলার এণ্ড লাইম হাউস আসনের সবচেয়ে সক্রিয় বাংলাদেশী বংশোদ্ভুত এমপি আপসানা বেগমকে আটকাতে স্থানীয় লেবারের একাংশ শুরু থেকে বিভিন্নভাবে কূটকৌশল করে যাচ্ছে বলে আলোচনা রয়েছে। সম্প্রতি বিষয়টি নিয়ে পুরো লেবারেই শুরু হয়েছে তোলপাড়। লেবারের ন্যাশনাল এক্সিকিউটিভ কমিটি (এনইসি) এর ৮ জন সদস্য এবং ন্যাশনাল ওমেন্স কমিটি (এনডব্লিউসি) এর বেশ কজন সদস্য পপলার এণ্ড লাইমহাউস আসনের ট্রিগার প্রক্রিয়া বন্ধের আহবান জানিয়েছেন। লেবারের হাইকমাণ্ডের কাছে দেওয়া একটি চিঠি লিখে এই আহবান জানান তারা। চিঠিতে স্বাক্ষরকারী ৮ এনইসি মেম্বারের তালিকায় ব্রিটিশ-বাংলাদেশী মিশ রহমানও রয়েছেন। আপসানার অবস্থানকে ক্ষুণ্ণ করার মতো হয়রানি, হুমকিমূলক আচরণ, লিঙ্গবাদ এবং দুর্ব্যবহার জড়িত থাকার বেশকিছু অভিযোগ উত্থাপিত হওয়ার পাশাপাশি তাঁর অসুস্থতার পরও ট্রিগার প্রক্রিয়া বন্ধ না করায় চিঠিতে স্বাক্ষারকারীরা ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।

আপসানাকে নিয়ে নানামুখী ষড়যন্ত্র বিষয়ে ইতোপূর্বে মুখ খুলেছেন লেবারের অনেক এমপি এবং সাবেক সিনিয়র নেতা। আপসানার বিরুদ্ধে নানা মিথ্যাচার ও হয়রানির অভিযোগ এনে তাদের অনেকেই ইতোমধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারে এবিষয়ে তাদের উদ্বেগ ও শঙ্কা জানিয়েছেন। সাবেক শ্যাডো চ্যান্সেলর ম্যাক-ডোনাল্ড, ডায়ান অ্যাবট এমপিসহ বেশ কয়েকজন গুরুত্বপূর্ণ লেবার এমপি আপসানা বেগমের বিরুদ্ধে বিভিন্ন ষড়যন্ত্র হচ্ছে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেন।

এদিকে, আপসানাকে আটকাতে এই মহল বিশেষের তৎপরতাকে ভালো চোখে দেখছেন না এলাকার জনসাধারণও। সক্রিয় এই এমপিকে আটকাতে মহল বিশেষের নানামুখী ষড়যন্ত্রের বিষয়টি পরিষ্কার হয়ে গেলে অনেককেই বিভিন্নভাবে ক্ষোভ প্রকাশ করতে দেখা যায়। কারণ, প্রথমবার নির্বাচনের আগে দলীয় সিলেকশনেও আপসানাকে আটকাতে ওই একই গ্রুপ অনেক কৌশলের আশ্রয় নিয়েছিলো এবং লেবারের সাধারণ সদস্যরা তা রুখে দাঁড়ানোয় তাদের সব চেষ্টা ব্যর্থ হয়। শুধু তাই নয়, নির্বাচিত হওয়ার পরও ওই একই গ্রুপ তাকে নানাভাবে হয়রানির চেষ্টাসহ মিথ্যা বিভিন্ন অপবাদ দিয়ে সরানোর চেষ্টা করে। এবারও সেই তারাই আবার সক্রিয় হয়েছে এবং একের পর এক ষড়যন্ত্র করে যাচ্ছে বলে আলোচনা রয়েছে। তাদের নানামুখী ভূমিকা এবং গভীর কূটচালের কারনেই ট্রিগার ভোটে হারতে বসেছেন আপসানা। বিভিন্নসূত্রে জানা গেছে, ইতোমধ্যে ৯টি ব্রাঞ্চের মধ্যে ৭টিতে হেরে গেছেন তিনি। তবে ইউনিয়নগুলোর সমর্থন এখনো তাঁর পক্ষে রয়েছে বলে জানা যায়।

উল্লেখ্য, ব্রিটিশ পার্লামেন্টে বাংলাদেশী বংশোদ্ভুত যে ৪ জন এমপি রয়েছেন তম্মধ্যে পপলার এণ্ড লাইম হাউস আসনের এমপি আপসানা বেগম বর্তমান সময়ে তুলনামূলকভাবে বেশী সক্রিয়। এনার্জি বিল বৃদ্ধি এবং নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্যের উর্দ্ধগতির কঠিন সময়ে নিজের দরিদ্রপীড়িত এলাকার মানুষের কথা ভেবে প্রধানমন্ত্রীর প্রশ্নোত্তর পর্বে অংশ নিয়ে সরকারের বেনিফিট কাটের কঠোর সমালোচনাসহ বিভিন্ন বিষয়ে তাকে পার্লামেন্টে সক্রিয় ভূমিকা রাখতে দেখা গেছে।দ

সম্পরকিত প্রবন্ধ

Back to top button
Close
Close