কমিউনিটি নিউজ

ইউরোপ জমিয়তের প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তারা: ধর্ম অবমাননার জন্যে ভারত সরকারকে আনুষ্ঠানিক ভাবে দুঃখ প্রকাশ করতে হবে

লণ্ডন, ২২ জুন : সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ট মহামানব, মানবতার মুক্তিদূত মহানবী হযরত মুহাম্মাদ সাঃ ও তার সহধর্মিনী হযরত আয়েশা রাঃ সম্পর্কে জঘন্যতম কটুক্তির প্রতিবাদে জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম ইউরোপ-এর উদ্যোগে অনুস্টিত প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তারা বলেন, ভারতের বিজিপি সরকারের মুখপাত্র নূপুর শর্মা ও দিল্লির মিডিয়া প্রধান নবীন কুমার জিন্দাল আমাদের প্রিয়নবী মোহাম্মাদ সাঃ সম্পর্কে যে কুরুচীপূর্ণ মন্তব্য করেছে তা ক্ষমার অযোগ্য, এ বিষয়ে ভারত সরকারের নিরবতা পরোক্ষভাবে তাদেরকে সমর্থনের ঈঙ্গিত বহণ করে। বক্তারা বলেন ধর্ম ও ধর্মজ্ঞান মানুষের জন্য,পশুদের কোন ধর্ম বা ধর্মজ্ঞান থাকেনা। ধর্মীয় মূল্যবোধ ও শৃঙ্খলা মানুষের মাঝে মানবতাবোধ জাগ্রত করে, তারা বলেন সকল মানুষের জন্য উচিত নিজ নিজ ধর্মীয় অনুশাসন মেনে চলার পাশাপাশি ভীন্নমত, ধর্ম ও ধর্মীয় গুরুদের প্রতি যথেস্ট শ্রদ্ধাশীল হওয়া, এমনটি না হলে মানুষ আর পশুর মধ্যে মৌলিক কোন পার্থক্য থাকেনা । বক্তারা বলেন, আমরা গভীরভাবে লক্ষ্য করছি নিকট অতীতেও ভারতে সংখ্যালঘু মুসলমানদের উপর ঘন ঘন নির্যাতন চালানো হয়েছে, সেখানে মুসলমানদের মানবাধিকার চরমভাবে ভুলন্ঠিত হচ্ছে দীর্ঘ দিন যাবৎ এবং এসব বিষয়ে রাস্ট্র ও প্রশাসন বরাবরই নিরব দর্শকের ভূমিকা পালন করে আসছে। নেতৃবৃন্দ বলেন,ভারত নিজেদেরকে ধর্ম নিরপেক্ষ দেশ দাবী করে, কিন্ত নিয়মিত ভীন্ন ধর্মমতের মানুষদের উপর নির্যাতন বা তাদের ধর্মীয় অনুভূতির উপর আঘাত চালায়, একটি ধর্ম নিরপেক্ষ দেশে এটা কখনো কাম্য হতে পারেনা । তারা বলেন, আমরা আশা করেছিলাম জঘন্য অপরাধ সংঘঠিত করার জন্য নুপুর শর্মা ও নবীন কুমার জিন্দালকে শাস্তির আওতায় নেবে ভারত কিন্ত আমরা কি দেখলাম ? যারা তাদের অপকর্মের প্রতিবাদ করেছিলো  তাদের উপর সে দেশের পুলিশ প্রশাসন নির্যাতনের স্টিম রোলার চালাচ্ছে!  এমন কি তাদের বসতবিঠা,ব্যবসা প্রতিস্টান, দালান বাড়ি বুলডোজার দিয়ে গুড়িয়ে দিচ্ছে, আমরা এসব জুলুমবাজী বন্ধ করার জোর দাবী জানাচ্ছি এবং এসকল অনৈতিক কার্যক্রমের তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি, আমরা জোর দাবী জানাই যেনো ভারত সরকার দোষীদের শাস্তি প্রদানের পাশাপাশি মুসলিম বিশ্বের নিকট দুঃখ প্রকাশ করে । সাথে সাথে ৯০ ভাগ মুসলমানের দেশ বাংলাদেশ সরকারকে এ বিষয়ে সংসদে নিন্দা প্রস্তাব পাশ করানোর জন্য সমাবেশের পক্ষ থেকে জোর দাবী জানানো হয়।

গত ১৭ই জুন, শুক্রবার বিকাল ৮ ঘটিকায় লণ্ডন সিটির ফোর্ড স্কয়ার  মাসজিদ মিলনায়তনে জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম ইউরোপ আয়োজিত প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তারা উপরোক্ত কথাগুলো বলেন, ইউরোপ জমিয়তের মুহতারাম সহ সভাপতি মাওলানা সৈয়দ আশরাফ আলীর সভাপতিত্বে সমাবেশের শুরুতে পবিত্র কালামে পাক থেকে তিলাওয়াত করেন মাওলানা কামাল উদ্দিন, দলের মহাসচীব মুফতী মাওসুফ আহমদের পরিচালনায় দলের কেন্দ্রীয় ও মহানগরীর নেতৃবৃন্দের মধ্য থেকে এতে বক্তব্য রাখেন, ইউরোপ জমিয়তের উপদেষ্টা মাওলানা বশির উদ্দিন সাহেব, ইউরোপ জমিয়তের সহ সভাপতি মাওলানা আব্দুল আজীজ সিদ্দিকী, মাও: সৈয়দ মুশাররাফ আলী, মাওলানা হাফিজ মোবারক আলী,ইউকে জমিয়তের সেক্রেটারি মাওলানা মামনুন মুহিউদ্দীন, লন্ডন মহানগর জমিয়তের সভাপতি মাওঃ নাজিরুল ইসলাম, সহ-সভাপতি মুফতি আজিম উদ্দিন, সহ-সভাপতি  মুফতি লুৎফুর রহমান বিন্নুরী, মাওলানা হাফিজ আব্দুল আওয়াল, মহানগর জমিয়তের সেক্রেটারি মাওলানা জসীম উদ্দীন, ইউরোপ জমিয়তের সহ সম্পাদক মুফতি বুরহান উদ্দিন,মহানগর জমিয়তের যুগ্ম সেক্রেটারি মাওলানা ফয়জুর রাহমান কামালি, সহ সেক্রেটারি মাওলানা মুখতার হোসাইন, , যুব বিষয়ক সম্পাদক মাওলানা হোসাইন আহমদ, মুফতি জসীম উদ্দীন, মিল্টন কিংস জমিয়তের সেক্রেটারি আলহাজ্ব নুরুল হক।এতে আরো উপস্থিত ছিলেন, মহানগর জমিয়তের সহ যুব বিষয়ক সম্পাদক হাফিজ ওয়ালিদ রাহমান,মাওলানা সালেহ আহমদ, হেকনি শাখার আলহাজ্ব জুবায়ের আহমেদ, আলহাজ্ব আব্বাস মিয়া, টাওয়ার হ্যামলেটস শাখার সহ সভাপতি আলহাজ্ব  ফয়েজ মুহাম্মদ রাহমান,আলহাজ্ব আনোয়ার বক্স,আলহাজ্ব খালেদ আহমদ, আলহাজ্ব হাবিবুর রহমান,আলহাজ্ব আব্দুল খালিক, হাফিজ মুশাররাফ আহমদ, মোঃ আব্দুল মুকরিম প্রমুখ। উক্ত সমাবেশে ইউরোপ জমিয়তের বিভিন্ন স্থরের নেতা-কর্মীসহ নবী প্রেমিক তাওহিদ প্রিয় জনতা এতে স্বতস্ফূর্তভাবে অংশ গ্রহন করেন। সভা শেষে মুসলিম উম্মাহর ঐক্য, শান্তি ও সংহতি  কামনা করে দো’আ পরিচালনা করেন ইউরোপ জমিয়তের উপদেষ্টা হযরত মাওলানা বশির উদ্দিন সাহেব।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

Back to top button
Close
Close