নিউজবাংলাদেশহোম

সুষ্ঠু নির্বাচন হলে তারেকই হবেন প্রধানমন্ত্রী : দেশমান্য জাফরুল্লাহ

লন্ডন সফর শেষে হিথরো বিমানবন্দরে

সুরমা প্রতিবেদন।
লন্ডন ১৫ এপ্রিল। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মানসিকভাবে পূর্ণ মাত্রায় সক্ষম নন। তিনি তাঁর পরিবারের সবাইকে হারিয়েছেন, হয়তো সেই বেদনা কখনো ভুলতে পারেন না। এরকম সর্বহারা হলে যে কারো পক্ষে মেন্টালি সিক হয়ে যাওয়া সম্ভব। তিন সপ্তাহের লন্ডন সফর শেষে দেশে ফিরে যাওয়ার প্রাক্কালে হিথ্রো বিমানবন্দরে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা.জাফরুল্লাহ চৌধুরী সাপ্তাহিক সুরমার প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা “দেশে কোনো শক্তিশালী বিরোধী দল নেই এবং তাতে একটা রাজনৈতিক সঙ্কট দেখা দিয়েছে” বলে যে বক্তব্য দিয়েছেন তার সূত্র ধরে প্রশ্ন করা হলে ডাক্তার চৌধুরী আরও বলেন, গণতন্ত্র থেকে সরকার বহু দূরে সরে গেছে। এখন এসব বলে কোন লাভ নেই। এই সরকারের অধীনে আর কোনো নির্বাচন হবেনা। করা যাবে না। তিনি বলেন, গণতন্ত্র উদ্ধারে প্রবাসীরা বিদেশ থেকে সংঘবদ্ধভাবে চাপ দিতে পারে। কারণ তাদের অর্থের উপরই বাংলাদেশের অর্থনীতি টিকে আছে। শুধু রেমিটেন্সের কারণেই বাংলাদেশে হয়তো শেষ পর্যন্ত শ্রীলংকা হওয়া থেকে বেঁচে যেতে পারে।

বিএনপি’কে বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি আন্দোলন বেগবান করতে আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, তারেক রহমানের উচিত বেগম জিয়ার মুক্তি আন্দোলন বেগবান করা। দশ হাজার লোক হাইকোর্ট ঘেরাও করলে বিচারকদের কাপাকাপি শুরু হয়ে যাবে। দেশে ফাঁসীর আসামির পর্যন্ত জামিন হয়, সেখানে টুটাফাটা মামলায় খালেদা জিয়াকে আটকে রাখা হয়েছে। তার জামিন পাওয়ার সব অধিকার আছে। তিনি সবচেয়ে জনপ্রিয়। তাঁকে সরকার ভয়ে আটকে রেখেছে। তারেক রহমান তার নেতাকর্মীদের বলতে পারেন, মায়ের মুক্তি না হওয়া পর্যন্ত তারা যেন তাকে ফোন না করে। তাহলেই কিছুদিনের মধ্যে আন্দোলনের মাধ্যমে বেগম জিয়া মুক্তি পাবেন। দেশমান্য বলেন, তারেক রহমান বিএনপির ভবিষ্যৎ, দেশের ভবিষ্যৎ। এখন দেশে গেলে তাকে হত্যা কিংবা গুম করে ফেলতে পারে। কিন্তু সুষ্ঠু নির্বাচন হলে তিনিই প্রধানমন্ত্রী হবেন। এতে কোন সন্দেহ নেই । তাঁর উচিত সবাইকে নিয়ে আন্দোলন গড়ে তোলা। তাহলে দেশ মুক্তি পাবে, গণতন্ত্রও মুক্তি পাবে।

ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বৃটিশ পার্লামেন্টে ভয়েস ফর গ্লোবাল বাংলাদেশীজের উদ্যোগে আয়োজিত প্রবাসে মুক্তিযুদ্ধের সংগঠকদের সম্মাননা পদক গ্রহণ এবং ওই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে যোগদান করতে ২৫মার্চ লন্ডন সফরে আসেন।

প্রবাসীদের উদ্যোগে লন্ডনে পৃথক এক নাগরিক সংবর্ধনায় প্রবাসীরা তাঁকে মুক্তিযুদ্ধ, দেশগঠন ও জাতির বিবেক হিসেবে আপামর জনগণের কাছে মান্যবর ব্যাক্তিত্বের স্বীকৃতি হিসেবে দেশমান্য” খেতাবে ভূষিত করা হয়। বিদায়ের প্রাক্কালে হিরো বিমান বন্দরে তাকে বিদায় জানাতে উপস্থিত ছিলেন ভয়েস ফর গ্লোবাল বাংলাদেশীজের চেয়ার ড. হাসনাত এম হোসাইন, এমবিই, সঙস্থার পরিচালক আন্তর্জাতিক সম্পর্ক ও সাপ্তাহিক সুরমা সম্পাদক শামসুল আলম লিটন, সুনামগঞ্জ গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র হাসপাতালের উদ্যোক্তা আবদুল আউয়াল।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

Back to top button
Close
Close