নিউজ

আলতাব আলী পার্কে হিউম্যান রাইটস এ্যালায়েন্স ইউকে’র প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত

লণ্ডন, ২১ সেপ্টেম্বর : বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর নায়েবে আমীর ও সাবেক সংসদ সদস্য মাওলানা সামছুল ইসলাম, জেনারেল সেক্রেটারি ও সাবেক সংসদ সদস্য মিয়া গোলাম সরওয়ারসহ সম্প্রতি গ্রেফতারকৃত ১০ জন জামায়াতে ইসলামীর শীর্ষ স্হানীয় এবং বিরোধী দলীয় সকল নেতৃবৃন্দের মুক্তির দাবীতে লণ্ডন ভিত্তিক মানবাধিকার প্লাটফর্ম হিউম্যান রাইটস এ্যালায়েন্স ইউকে’র উদ্যোগে এক প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

গত ২০ সেপ্টেম্বর, সমবার আলতাব আলী পার্কে অনুষ্ঠিত প্রতিবাদ সভায় সংগঠনের আহবায়ক আব্দুল আলী-এর সভাপতিত্বে ও যুগ্ম-আহবায়ক মো. দেলোয়ার হোসাইন এর উপস্থাপনায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী ইউরোপের মুখপাত্র ও আন্তর্জাতিক আইনজীবী ব্যারিষ্টার আবু বকর মোল্লা। প্রধান অতিথি তার বক্তব্য বলেন, আজকে বাংলাদেশে যে রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক, সামাজিক ও শাসন তান্ত্রিক দৈন্য-দশা সৃষ্টি হয়েছে এবং সাধারণ জনগণের যে অধিকার নষ্ট করা হয়েছে সেই অধিকার রক্ষার জন্য, তাছাড়া বাংলাদেশের সংবিধান, গণতন্ত্র, মানবাধিকার, স্বাধীনতার কমিটমেন্ট রক্ষা করার জন্য আমরা সকল দেশ প্রেমিক জনতা আজকে লণ্ডনের ঐতিহাসিক আলতাব আলী পার্কে সমবেত হয়েছি। বিশেষভাবে আমরা এখানে সমবেত হয়েছি, বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর শীর্ষ নেতৃবৃন্দকে অন্যায় ও হাস্যকরভাবে গ্রেফতারের প্রতিবাদ জানাতে। আমরা অনতিবিলম্বে জামায়াতসহ বিরোধী দলের সকল নেতৃবৃন্দের মুক্তির দাবী জানাচ্ছি।

জামায়াতের সাথে আওয়ামী লীগের বিভিন্ন সময়  এক সাথে রাজনৈতিক ও গণতান্ত্রিক আন্দোলন করার ইতিহাস স্মরণ করিয়ে শেখ হাসিনাকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, আপনার বাবা শেখ মুজিবুর রহমান জামায়াতের সাথে গণতন্ত্রের জন্য অসংখ্য সভা-সমাবেশ ও আন্দোলন করেছেন যার অনেক প্রমাণ রয়েছে। তাছাড়া হাসিনা তুমি যে সব জামায়াতের নেতৃবৃন্দের সাথে অসংখ্য সভা-সমাবেশ ও গণতন্ত্রের জন্য আন্দোলন করেছো কিন্তু লজ্জাজনক ভাবে মিথ্যা মামলায় ফাঁসি দিয়েছো, রক্ত ঝরিয়েছো এবং এখন হাস্যকর মামলা দিয়ে জেলে পাঠিয়েছো… শেইম! শেইম অন ইউ!!!।

বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশ ইসলামি ছাত্র শিবির সিলেট জেলার সাবেক সভাপতি আব্দুল্লাহ আল মুনিম। তিনি বলেন, জনগণের দৃষ্টি ভিন্ন দিকে ফেরাতে হাসিনার পুলিশ বাহিনী দিয়ে জামায়াতের শীর্ষ নেতৃবৃন্দকে অন্যায়ভাবে গ্রফতার করা হয়েছে। আমরা এর তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি এবং গ্রেফতার কৃত সকল নেতৃবৃন্দের মুক্তি দাবি করছি।

ইউনিভার্সেল ভয়েস ফর হিউম্যান রাইটসের সভাপতি জাকের আহমদ চৌধুরী, অনলাইন এক্টিভিষ্ট ফোরাম ইউকের সভাপতি মো. জয়নাল আবেদীন, নিরাপদ বাংলাদেশ চাই ইউকের সভাপতি মুসলিম খান, জাসাসের সভাপতি মো. বদরুল ইসলাম, হোয়াইট পিজিয়নের সভাপতি মো. আলা উদ্দিন ।

এ ছাড়াও বক্তব্য রাখেন— বিশিষ্ট সাংবাদিক আমিনুল ইসলাম মুকুল, অনলাইন এক্টিভিষ্ট ফোরাম ইউকের সহ সভাপতি মো. তরিকুল ইসলাম, সাবেক শিবির নেতা সাইফুর রহমান পারভেজ ও ফয়সল আহমদ,মিডিয়া সম্পাদক মো. রায়হান উদ্দিন, সাবেক শিবির নেতা ডা. মো. জায়েদ হোসেন, টাওয়ার হ্যামলেটস কেয়ারার এসোসিয়েশনের সভাপতি একে, এম, হেলাল, প্রফেসর আব্দুর রব, জাস্টিস ফর ভিকটিমের সিনিয়র সহ-সভাপতি সৈয়দ মোজাক্কির আহমদ, মো. আবু জাফর আবদুল্যাহ অফিস সম্পাদক ইকুয়াল রাইটস ইন্টারন্যাশনাল, সাবেক শিবির নেতা মো. শোয়াইবুর রহমান, মো. আমিনুল ইসলাম ও মোর্শেদ আহমদ খান, নিবাচা’র সহ-সভাপতি বৃন্দ মো. রায়হান উদদীন, করিম মিয়া, আলী হোসেন, সেক্রেটারী তাহমিদ হোসেন খান, সাংগঠনিক সম্পাদক বুরহান উদদীন চৌধুরী, নিবাচা ওয়েষ্টমিডল্যাণ্ড শাখার সভাপতি আব্দুস সামাদ খান,সেক্রেটারী মো. মাহফুজর রহমান, জাস্টিস ফর ভিকটিমের সিনিয়র সহ-সভাপতি মো. আসয়াদুল হক, নিবাচা’র সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ আলী, প্রচার সম্পাদক মোহাম্মদ আলী, মিডিয়া সম্পাদক মো. ইকবাল হোসেন, নিবাচা’র অনান্য দায়িত্বশীল বৃন্দ হলেন আরিফ আহমদ, মিফতা উদ্দীন, মো. মাহবুবুর রহমান, আলী উজ্জল, মো. আলম আহমদ, মো. আমিনুল ইসলাম সফর, নিবাচা’র মহিলা সম্পাদীকা ফারিয়া আক্তার সুমি ও তাহমিনা চৌধুরী, মো. শাহজাহান আহমদ, নাজির আহমদ, মো. ফাহাদুজ্জামান,শাহীন আহমদ, মো. ফরহাদ আলী, ফয়েজ আহমদ, বিএমএম তামজীদ, মো. আসিকুর ইসলাম, মানবাধিকার নেতা হাসিবুর রহমান,জালাল আহমদ জিলানী, ইআরআই সহ সাধারণ সম্পাদক মোর্শেদ আহমদ খান,অফিস সম্পাদক মোঃআবু জাফর আবদুল্যাহ, অনলাইন একটিভিস্ট ফোরাম ইউকের নেত্রীবৃন্দের মধ্যে  বক্তব্য রাখেন সমাজ কল্যান সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন, মো. জামিল হোসাইন, মো. আরসাদ আলী,ইউনিভার্সেল ফর হিউম্যান রাইটস, হোয়াইট পিজিয়ন ইন্টারন্যাশনাল এবং মানবাধিকার কর্মীদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, মো. হাসান আহমদ, মো. সুয়াইবুর রহমান, এবাদুর রাহমান, সাইদুর রহমান, ফয়েজ আহমদ, মো. আব্দুল কাদের জিলানী, মোহাম্মদ বেলাল আহমদ, মো. সাইফুর রহমান রাজু, মো. মকবুল হোসেন, মোহাম্মদ আলীম উদদীন, সালমান আহমদ, ইবাদুর রহমান, মোঃসৈয়দুল ইসলাম, কাজী মোজাম্মেল হুসাইন, শহিদুর রহমান, সাইদুজ্জামান তারেক, ওয়াছি উদদীন, ডা. মো. শাহজালাল চৌধুরী, মো. আবদুর রহমান, মো. সাহাদাত হোসেন, মো. মোশাররফ হোসাইন, মির্জা আবুল আহমদ, শেরওয়ান আলী, মো. ফানটু, নজরুল ইসলাম, রেজাউল করিম, খালেদ হুসাইন, সেবুল আহমদ, সোহেল আহমদ, মঈনুল ইসলাম, মোঃআশফাক আহমদ জবলু, মো. ইউসুফ, মো. মামুন মিয়া, সালাম হোসাইন, সৈয়দ তারেক রশিদ, লোকমান হোসেন মিনটু, মুহেবুল হাসান, ডা. মো. জায়েদ হোসেন,ফয়সল আহমদ, সায়েক উদদীন, মো. নাজমুল ইসলাম, মোহাম্মদ মাছউদুল হাছান, রিয়াজুল হক, মো. মাহমুদুল ইসলাম, মো. তানভীর হোসেন সিদ্দিকী, মো. তারেকুল ইসলাম, মো. কামরুল হাসান রকিব, তারেক হাসান, হুমায়ুন আহমদ, মো. আবু তাহের, বুরহান উদদীন, মো. জিয়াউর রহমান।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

Back to top button
Close
Close