নিউজ

টাওয়ার হ‍্যামলেটস কাউন্সিলের ‘কোভিড-১৯ হিরো’ স্বীকৃতি পেলো সৈয়দপুর শামসিয়া সমিতিসহ ৬০ ব‍্যাক্তি ও প্রতিষ্ঠান

।। সুরমা প্রতিবেদন ।।
লণ্ডন, ৩ সেপ্টেম্বর : মহামারি করোনাকালীন জনসাধারণের মধ্যে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে যেসব ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান কাজ করেছে তাদের ‘কোভিড-১৯ হিরো’র স্বীকৃত প্রদান করেছে টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিল। করোনার কঠিন সময়ে মানুষের মাঝে খাদ্য ও স্বাস্থ্যসামগ্রী বিতরণ, ফাণ্ডরেইজিং ও সচেতনতা সৃষ্টিসহ নানাভাবে সহায়তার জন্য ৬০ ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে তাদের স্বীকৃতিস্বরূপ এওয়ার্ড প্রদান করে কাউন্সিল।

অনন্য কমিউনিটি ওয়ার্কের জন্য এই স্বীকৃতির তালিকায় স্থান করে নিয়েছে সৈয়দপুর শামসিয়া সমিতি লণ্ডন। কাজের স্বীকৃতিস্বরূপ সংগঠনটিকে কমিউনিটি চ্যাম্পিয়ান এওয়ার্ড প্রদান করা হয়েছে। সংগঠনের সভাপতি পীর আহমদ কুতুবসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ উপস্থিত থেকে টাওয়ার হ্যামলেটসের স্পীকার কাউন্সিলার আহবাব হোসেনের হাত থেকে এওয়ার্ড গ্রহণ করেন। এসময় জেলএলএ মেম্বার উমেশ দেশাই এবং কাউন্সিলের কেবিনেট মেম্বার ও কাউন্সিলাবৃন্দসহ বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

গত ৩০ আগস্ট, সোমবার ক্রস হারবার কমিউনিটি ফানডে উপলক্ষে ইস্ট লণ্ডনের সর্ব বৃহৎ আজদা সুপার মার্কেটের কার পার্কিং-এ ফান ফেয়ারের আয়োজন করে টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিল। উক্ত ফান ফেয়ারে আনুষ্ঠানিভাবে মনোনীত ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের নেতৃবৃন্দের হাতে এওয়ার্ড তুলে দেওয়া হয়। টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিলের স্পীকার আহবাব হোসেনের সার্বিক তত্বাবধানে এবং গ্রেটার লণ্ডন অথরিটি, অসবর্ন বিচ, লণ্ডন টি অ্যাকচেঞ্চ এবং আজদা সুপার মার্কেটের সহযোগিতায় অনুষ্ঠিত এওয়ার্ড প্রদান অনুষ্ঠানে বিপুলসংখ্যক মানুষ উপস্থিতি হয়ে মনোনীত কেভিড-১৯ হিরোদের স্বীকৃতি প্রদান উপভোগ করেন এবং হাত তালি দিয়ে স্বাগত জানান।

হোয়াইটচ্যাপেল ওয়ার্ডের কাউন্সিলার কবি ও গীতিকার শাহ সোহেল আমীন শামসিয়া সমিতির কোভিড-১৯ হিরো স্বীকৃতি প্রাপ্তিতে সংগঠনের সবাইকে আন্তরিক অভিনন্দন জানিয়েছেন। উল্লেখ্য, তিনিই সৈয়দপুর শামসিয়া সমিতির সক্রিয় কমিউনিটির ওয়ার্কে মুগ্ধ হয়ে সংশ্লিষ্ট বিভাগে সংগঠনটির নাম মনোনয়নের প্রস্তাব করেছিলেন।

এদিকে, সাংবাদিকতার মাধ্যমে করোনাভাইরাস মহামারিতে মানুষের মাঝে সচেতনতা সৃষ্টিতে সহায়তা করার জন্য বাংলা মিডিয়ার কয়েকজন সাংবাদিক কোভিড-১৯ হিরো এওয়ার্ড পেয়েছেন। তারা হলেন, এটিএন বাংলার মোস্তাক বাবুল, চ্যানেল এস’র রেজাউল করিম মৃধা, টিভি ওয়ানের জাকির হোসেন কয়েস এবং বাংলা টিভি’র আব্দুল কাদির মুরাদ।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

Back to top button
Close
Close