নিউজ

করবিনকে দলে ফিরিয়ে নেবার দাবী জোরদার

সাময়িক বরখাস্তে দল ও সমর্থকদের মধ্যে ব্যাপক ক্ষোভ

।। সুরমা প্রতিবেদন ।।
লণ্ডন, ৬ নভেম্বর – সাময়িকভাবে বরখাস্তকৃত বিরোধীদল লেবার পার্টির সদ্য সাবেক নেতা জেরেমি করবিন দলে ফিরিয়ে নেবার দাবী জোরদার হচ্ছে। এন্টি-সেমিটিজম ইস্যুতে সম্প্রতি বর্তমান দলীয় নেতা কিয়ার স্টারমার কর্তৃক বহিষ্কারাদেশের পর স্বয়ং দলের অভ্যন্তরে ক্ষোভের সঞ্চার হয়েছে। তবে দলের সিদ্ধান্তকে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত আখ্যা দিয়ে এর বিরুদ্ধে দৃঢ়তার সাথে মোকাবেলার করবেন বলে অঙ্গীকার করেছেন জেরিমি করবিন। একই সাথে তিনি তাঁর সমর্থকদের দলে থেকেই শান্তভাবে বিষয়টি মোকাবেলার আহবান জানিয়েছেন। তিনি এক সাক্ষাৎকারে দলীয় সমর্থকদের শান্ত থাকার পাশাপাশি তাদের আন্দোলন যেন লেফট উইয়িং ভ্যালুজ পার্টির অভ্যন্তরে জোরদার করার জন্য হয়, সেই আহবান জানান।

তাৎক্ষণিক ইউগোভ পরিচালিত পোল জরীপে করবিনের বহিষ্কারাদেশ ৪১% লেবার ভোটার সঠিক মনে করলেও ৪৫% লেবার ভোটার জেরেমি করবিন লেবার পার্টির একজন ভালো নেতা ছিলেন বলে মত প্রকাশ করেছেন।
জেরেমি করবিনের বহিষ্কারাদেশ বাতিল করে তাঁকে আবার দলে ফিরিয়ে দাবীতে সোচ্চার হয়েছেন দল ও ট্রেড ইউনিয়ন নেতাকর্মীসহ করবিন সমর্থকরা। চলছে অনলাইন পিটিশন ও ক্যাম্পেইন। অনলাইন পিটিশনে সাবেক শ্যাডো চ্যান্সেলর জন ম্যাক-ডোনাল্ড, ইয়েন লেভেরি এমপিসহ অনেক এমপিরা ইতোমধ্যে করবিনকে ফিরিয়ে নেবার দাবীতে স্বাক্ষর করেছেন।
এদিকে, লেবার পার্টির সবচেয়ে বড় ট্রেড ইউনিয়ন সংগঠন ইউনাইট-এর প্রধান ম্যাকলাস্কি বলেছেন, এই পদক্ষেপের মধ্যদিয়ে লেবার পার্টিকে দুই ভাগে বিভক্ত করে ফেলা হলো যার খেসারত দিতে হবে দলকে।
মোমেন্টাম করবিনের বহিষ্কারাদেশকে দলের লেফট উইয়িং এর উপর বিরাট আক্রমণ হিসেবে মন্তব্য করেছে। করবিনের নেতৃত্বকালীন লেবার দলের লেফট উইয়িংকে সমর্থন করার জন্য ২০১৫ সালে গঠিত মোমেন্টাম পার্টির ঐক্য ধরে রাখার জন্য অবিলম্বে করবিনের উপর বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহারের জোর দাবী জানিয়েছে।
এছাড়া, করবিনকে পুনরায় ফিরিয়ে নেবার দাবীতে একত্রিত হয়ে আন্দোলনের ডাক দিয়েছে রিচার্ড বার্গন এমপি। তিনি যুক্তি দেখিয়ে বলেছেন যে, জেরেমি করবিনকে অবশ্যই পুনঃস্থাপন করতে হবে এবং লেবার পার্টিকে টোরি পার্টির বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হয়ে লড়তে হবে। তিনি বলেন, কয়েক দশক ধরেও জেরেমি করবিন দেশ-বিদেশে নিপীড়িত মানুষের সাথে সংহতি রেখে দাঁড়িয়েছেন। তিনি দুর্বলের পক্ষে ন্যায় ও সাম্যের লড়াইয়ে সর্বদা আগুয়ান ছিলেন। শ্রম ও প্রগতিশীল আন্দোলন-সংগ্রামের পাশাপাশি ইরাকের যুদ্ধের বিরোধিতা থেকে শুরু করে নিষ্ঠুর টোরি সুবিধাগুলি হ্রাসের বিরোধিতায় জেরেমি করবিন সর্বদা আমাদের পাশে ছিলেন। এখন আমাদের তাঁর সাথে দাঁড়ানো দরকার।
উল্লেখ্য, করবিনের আমলে লেবার পার্টিতে ইহুদিবিদ্বেষ নিয়ে মানবাধিকার কমিশনের তীব্র সমালোচনামূলক তদন্ত প্রতিবেদন প্রকাশের পর করবিন তা প্রত্যাখ্যান করেও যেসব মন্তব্য করেছেন সেগুলো জেরে তাকে দল থেকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়।
যুক্তরাজ্যের ইকুয়ালিটি অ্যা- হিউম্যান রাইটস কমিশনের (ইএইচআরসি) ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, করবিন লেবার পার্টির দায়িত্বে থাকার সময় তার দল ইহুদিদের বিরুদ্ধে হয়রানি এবং বৈষম্য ঠেকাতে ব্যর্থ হয়ে সমতা আইন (ইকুয়ালিটি অ্যাক্ট) ভঙ্গ করেছে।
তবে করবিন সঙ্গে সঙ্গেই এ প্রতিবেদন গ্রহণযোগ্য নয় বলে তা প্রত্যাখ্যান করেছেন এবং তিনি ইহুদিবিদ্বেষের ক্যান্সার নির্মূল করার চেষ্টা করেছেন বলেও দৃঢ়ভাবে দাবী করেছেন।
করবিনের আরও দাবী, তিনি ইহুদিবিদ্বেষের নিন্দা করেছিলেন। তবে তার নেতৃত্বের সময় লেবার পার্টিতে যে মাত্রায় ইহুদিবিদ্বেষ ছিল রাজনৈতিক ফায়দা নিতে বিরোধীরা তা নাটকীয়ভাবে অনেক বাড়িয়ে দেখিয়েছিল।
পার্টিতে আমলাতান্ত্রিক জটিলতার কারণে সংস্কার প্রচেষ্টা বাধাগ্রস্ত হয়েছে বলেও দাবী করেছেন করবিন। তিনি বরখাস্তের এই পদক্ষেপ রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত আখ্যা দিয়ে এর বিরুদ্ধে কঠোরভাবে লড়ে যাওয়ার অঙ্গীকার করেছেন।
মানবাধিকার কমিশনের প্রতিবেদন নিয়ে লেবার দলের বর্তমান নেতা স্টারমার বলেন, “লেবার পার্টির জন্য এ এক লজ্জার দিন। প্রতিবেদনের সুপারিশগুলো যত তাড়াতাড়ি সম্ভব কার্যকর করা এবং লেবার সংস্কৃতি পরিবর্তনের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন তিনি।
লেবার পার্টি পরবর্তীতে এক বিবৃতিতে বলেছে, “আজ করবিন সেসব মন্তব্য করেছেন তার প্রেক্ষিতে এবং এরপর তিনি তা প্রত্যাহার করে নিতে না পারার কারণে লেবার পার্টি তাকে সাময়িক বরখাস্ত করেছে।”

করবিনকে দলে ফিরিয়ে নেয়ার জন‍্য সিগন‍্যাচার ক‍্যাম্পেইনের লিংক:
http://chng.it/hXWKgjQxTq

সম্পরকিত প্রবন্ধ

Back to top button
Close
Close