নিউজ

শেষ হলো ৫ দিনব্যাপী ভার্চুয়াল লণ্ডন বাংলা বইমেলা ২০২০

লণ্ডন, ১৪ অক্টোবর – গত ৯ থেকে ১৩ অক্টোবর সিইএন-এর আয়োজনে এবং সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট, যুক্তরাজ্যের সহযোগিতায় অনুষ্ঠিত হয়েছে “পাঁচ দিনব্যাপী ভার্চুয়াল লণ্ডন বাংলা বইমেলা, সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক উৎসব”। এবারের বইমেলা ছিল লণ্ডনে বইমেলা প্রতিষ্ঠার ১১তম বছর (২০১০-২০২০)। লন্ডন বাংলা বইমেলা ২০২০-এর আহবায়ক হিসাবে দায়িত্ব পালন করেছেন বিশিষ্ট সাংবাদিক, লেখক সৈয়দ বদরুল আহসান। বইমেলার বিভিন্ন কার্যক্রম বাস্তবায়নের প্রধান হিসাবে দায়িত্বে ছিলেন সিইএন-এর সিইও এবং সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট, যুক্তরাজ্যের সভাপতি, বিশিষ্ট সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব জনাব গোলাম মোস্তফা। লন্ডন বাংলা বইমেলা উৎসর্গ করা হয়েছে বাংলাদেশের মহান স্থপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে।

ভার্চুয়াল লন্ডন বাংলা বইমেলার বিভিন্ন কর্মসূচীর মধ্যে ছিল উদ্বোধনী অধিবেশন, শিশু-কিশোর উৎসব, লেখক প্রকাশক আলাপচারিতা, বিভিন্ন সেমিনার, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নিবেদিত কবিতা পাঠ, আবৃত্তি ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। বিভিন্ন অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেছেন লন্ডন, ইউরোপসহ পৃথিবীর নানা দেশ থেকে লেখক, কবি, শিল্পী।

৯ অক্টোবর পাঁচ দিনব্যাপী ভার্চুয়াল বইমেলার উদ্বোধনী অধিবেশনে প্রধান অতিথি হিসাবে যোগদান করেছেন কে এম খালিদ, প্রতিমন্ত্রী, সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়। লন্ডন ভার্চুয়াল বাংলা বইমেলা ২০২০ উদ্বোধন করেন কবি কামাল চৌধুরী, প্রধান সমন্বয়ক, মুজিববর্ষ জাতীয় উদ্যাপন বাস্তবায়ন কমিটি। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন লন্ডন ভার্চুয়াল বাংলা বইমেলা ২০২০ এর আহŸায়ক বিশিষ্ট সাংবাদিক, লেখক সৈয়দ বদরুল আহসান। উদ্বোধনী অধিবেশনে প্রধান অতিথি, বিশেষ অতিথি, বইমেলার আহবায়কসহ আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন খন্দকার সোহেল, সত্ত্বাধিকারী, ভাষাচিত্র প্রকাশনী এবং অতিরিক্ত নির্বাহী, জ্ঞান ও সৃজনশীল প্রকাশনা সমিতি। বইমেলার ঘোষণা পাঠ করেন ড: সুপ্রিয় রায়, সাধারণ সম্পাদক, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট, যুক্তরাজ্য এবং উদ্বোধনী অধিবেশনে সভাপতিত্ব করেন বিশিষ্ট সাংস্কৃতিক সংগঠক, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট যুক্তরাজ্যের সভাপতি, গোলাম মোস্তফা।

উদ্বোধনী অধিবেশনের পর বাংলা একাডেমি মহাপরিচালক কবি হাবিবুল্লাহ সিরাজীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয় ‘বঙ্গবন্ধু মৃত্যুঞ্জয়ী মহামানব’ শীর্ষক আলোচনা সভা। এতে আলোচনা করেন কবি হাবিবুল্লাহ সিরাজী, বিশিষ্ট কথা সাহিত্যিক সেলিনা হোসেন এবং বৃটেনে নিযুক্ত বাংলাদেশের মান্যবর রাষ্ট্রদূত সাইদা মুনা তাসনীম।

‘কবিতায় বঙ্গবন্ধু’ অনুষ্ঠানে স্বরচিত কবিতা পাঠ করেন কবি কামাল চৌধুরী এবং কবি হাবিবুল্লাহ সিরাজী। পরিচালনা করেন কবি সিহাব শাহরিয়ার। বঙ্গবন্ধুকে নিবেদিত সঙ্গীতানুষ্ঠানে সঙ্গীত পরিবেশন করেন বাংলাদেশ থেকে শিল্পী মিতা হক, শিল্পী সাজেদ আকবর, যুক্তরাজ্য থেকে শিল্পী হিমাংসু গোস্বামী।

বই মেলার ২য় দিন ১০ অক্টোবর ছিল শিশু-কিশোর উৎসব। বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে প্রকাশনা, একটি আলোচনা। নতুন বই লেখক, প্রকাশক আলোচনা, বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে নিবেদিত কবিতা ও সঙ্গীতানুষ্ঠান।

২য় দিনের প্রধান অতিথি হিসাবে ছিলেন ড. গওহর রিজভী, প্রধানমন্ত্রীর আন্তর্জাতিক বিষয়ক উপদেষ্টা। ২য় দিনের মূল আলোচনার বিষয়- “বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে দেশ-বিদেশে প্রকাশনা”। আলোচনায় অংশগ্রহণ করেছেন গোলাম ক্দ্দুুস, সভাপতি, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট, ঢাকা, ড: গোলাম আবু জাকারিয়া, লেখক, জার্মানী, সৈয়দ বদরুল আহসান, সাংবাদিক ও লেখক, যুক্তরাজ্য এবং আনিস আহমেদ, সাংবাদিক ও লেখক, যুক্তরাষ্ট্র। আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন সাংবাদিক, লেখক সৈয়দ বদরুল আহসান।

আলোচনার পরে ছিল বঙ্গবন্ধুকে নিবেদিত কবিতা। অংশগ্রহণ করেন কবি মিনার মনসুর, পরিচালক, জাতীয় গ্রন্থকেন্দ্র, আনিসুল হক, লেখক, কবি খালিদ হোসেন, কবি ও সাংবাদিক। এছাড়াও ছিল লেখক-প্রকাশক আলাপচারিতা। এই পর্বে অংশগ্রহণ করেন যুমযুমি প্রকাশনীর সত্ত¡াধিকারী শায়লা রহমান তিথি এবং কবি শেখ মুসলিমা মুন।

‘শিশু-কিশোরদের চোখে বঙ্গবন্ধু’ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা, সুইডেন, বাংলাদেশ থেকে শিশু-কিশোররা অংশগ্রহণ করেন।

বঙ্গবন্ধুকে নিবেদিত সঙ্গীতানুষ্ঠানে বাংলাদেশ থেকে অংশগ্রহণ করেন মহান মুক্তিযুদ্ধের কন্ঠশিল্পী শাহীন সামাদ ও যুক্তরাজ্য থেকে শিল্পী ফজলুল বারী বাবু।

লণ্ডন বাংলা বইমেলার ৩য় দিন— ১১ অক্টোবর শুরু হয় বিকাল ৩টায়। যুক্তরাজ্য লেখক সালেহা চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয় প্রবাসে বাংলা সাহিত্য ও সাংস্কৃতি চর্চা বিষয়ক সেমিনার। আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন যুক্তরাজ্য থেকে বিশিষ্ট সাংবাদিক ও লেখক সৈয়দ বদরুল আহসান, জার্মানী থেকে অংশগ্রহণ করেন বিশিষ্ট সাংবাদিক ও লেখক নাজমুন্নেসা পিয়ারী এবং অষ্ট্রিয়া থেকে অংশগ্রহণ করেন ইউরোপীয়ান আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও লেখক এম. নজরুল ইসলাম এবং ড. জিয়া উদ্দীন আহমেদ, নিউইয়র্ক বইমেলা ২০২০ এর আহ্বায়ক।

বঙ্গবন্ধুকে নিবেদিত কবিতা আবৃত্তি অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেন বাংলাদেশ থেকে বিশিষ্ট আবৃত্তিকার আহকাম উল্লাহ ও নায়লা তাবাস্সুম কাকলী, লন্ডন থেকে ড: সুপ্রিয় রায়, সুমনা ভট্টাচার্য্য এবং ফ্রান্স থেকে রবি সঙ্কর মৈত্রী। এরপর ছিল প্রকাশক ও লেখকদের নিয়ে বিশেষ অনুষ্ঠান। এতে অংশগ্রহণ করেন শ্যামল পাল, সত্বাধিকারী, পুথীনিলয় প্রকাশনা এবং সহ-সভাপতি, বাংলাদেশ পুস্তক ও প্রকাশনা সমিতি, কবি শাকিরা ফারভিন এবং তানিম বিন যাকারিয়া, যুক্তরাজ্য।

এই দিনের সর্বশেষ অনুষ্ঠান ছিল বঙ্গবন্ধুকে নিবেদিত সঙ্গীতানুষ্ঠান, এতে সঙ্গীত পরিবেশন করেন বিশিষ্ট লালনগীতি শিল্পী ফরিদা ফারভিন এবং বাঁশীতে ছিলেন গাজী আব্দুল হাকিম।

লন্ডন বাংলা বইমেলার ৪র্থ দিনের প্রধান অতিথি হিসাবে ছিলেন বিশিষ্ট লেখক, বুদ্ধিজীবি মোহাম্মদ জাফর ইকবাল। এই দিনের অনুষ্ঠানমালার উদ্বোধন করেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলদেশ সরকারের মাননীয় শিক্ষামন্ত্রী ড. ডিপু মনি এবং সভাপতিত্ব করেন জার্মান প্রবাসী লেখক নাজমুননেসা পিয়ারী। বঙ্গবন্ধুর অর্থনৈতিক শীর্ষক আলোনায় প্রধান আলোচক হিসাবে আলোচনা করেন বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ অধ্যাপক এম এম  আকাশ, সুইডেন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ড. ফরহাদ আলী খান এবং জার্মান চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি আনোয়ারুল কবির।

‘বাংলাদেশে প্রকাশনা শিল্প সমস্যা ও সম্ভাবনা’শীর্ষক আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন কবি মিনার মনসুর, পরিচালক, জাতীয় গ্রন্থকেন্দ্র, বিশ্বজিত সাহা, সিইও, মুক্তধারা নিউইয়র্ক এবং আবুল বাসার ফিরোজ, স্বত্তবাধিকারী, দ্রæবপদ, পরিচালক, জ্ঞান ও সৃজনশীল প্রকাশনা সমিতি।

বইমেলার ৪র্থ দিনের অনুষ্ঠানে আরো ছিল Poetry for freedom শীর্ষক কবিতা অনুষ্ঠান। এতে অংশগ্রহণ করেন বৃটেনের কবি প্রিসিলিয়া জোসেপ, মীর মাহফুজ এবং ফুলনাহার বেগম।

শেষ পর্বে ছিল সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। এতে সঙ্গীত পরিবেশন করেন শিল্পী শ্যমল চৌধুরী, বাংলাদেশ এবং নৃত্যে ছিলেন অনুশ্মিতা সাহা, যুক্তরাজ্য।

লন্ডন বইমেলার সমাপনী দিবসের প্রধান অতিথি হিসাবে ছিলেন বিশিষ্ট বুদ্ধিজীবি অধ্যাপক শামসুজ্জামান খান, সভাপতি, বাংলা একাডেমী। সমাপনী দিবসের উদ্বোধন করেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মাননীয় সচিব মোহাম্মদ বদরুল আরেফিন এবং বিশেষ অতিথি ছিলেন কবি নির্মলেন্দু গুন।

‘প্রবাসে বইমেলা ও অভিবাসীদের অগ্রযাত্র’ শীর্ষক আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন কথাসাহিত্যিক আনিসুল হক, ড: রফিকুল্লাহ খান, উপাচার্য, শেখ হাসিনা বিশ্ববিদ্যালয়, নেত্রকোনা, ফারুক এইচ. খান, বিশষ্ট সংস্কৃতিকর্মী, যুক্তরাজ্য। সমাপনী দিবসের আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন জার্মান প্রবাসী বিজ্ঞানী ও লেখক ড. গোলাম আবু জাকারিয়া।

বঙ্গবন্ধুকে নিবেদিত স্বরচিত কবিতা পাঠ অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেন কবি নির্মলেন্দু গুন, কথা সাহিত্যিক ও কবি আনিসুল হক, কবি বিমল গুহ ও যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী কবি শামস্ আল মমিন। স্বরচিত কবিতা পাঠ অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন কবি শিহাব শাহরিয়ার।

সমাপনী দিবসের সর্বশেষ অনুষ্ঠান ছিল বঙ্গবন্ধুকে নিবেদিত কনসার্ট। এতে সঙ্গীত পরিবেশন করেন শিল্পী তপন চৌধুরী (বাংলাদেশ), শিল্পী গৌরী চৌধুরী, (ইউ.কে), ষ্রোমনা গুহ ঠাকুরদা, কলকাতা।

বিভিন্ন দিনের অনুষ্ঠান পরিচালনায় ছিলেন কবি শামসুল আরেফিন (যুক্তরাজ্য), টিভি উপস্থাপিকা উর্মী মাযহার (যুক্তরাজ্য), সাজিয়া স্নিগ্ধা (যুক্তরাজ্য), শিশু শিল্পী অঙ্কিতা দাসগুপ্ত (বাংলাদেশ) এবং কবি শিহাব শাহরিয়ার (বাংলাদেশ)।

পাঁচ দিনব্যাপী বর্নাঢ্য ভার্চুয়াল লন্ডন বাংলা বইমেলা সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক উৎসবের সমাপনী বক্তব্য রাখেন লন্ডন বাংলা বইমেলা ২০২০ উৎসব কমিটির আহবায়ক বিশিষ্ট সাংবাদিক ও লেখক সৈয়দ বদরুল আহসান। সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট, যুক্তরাজ্যের সভাপতি বিশিষ্ট সাংস্কৃতিক সংগঠক জনাব গোলাম মোস্তফার ধন্যবাদ জ্ঞাপনের মাধ্যমে লন্ডন বাংলা বইমেলা ২০২০-এর সমাপ্তি ঘোষণ করা হয়।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

Back to top button
Close
Close