নিউজ

লণ্ডনের বেকটনে বাঙালি কিশোরের লাশ উদ্ধার

।। সুরমা প্রতিবেদন ।।
লণ্ডন, ৫ মার্চ – পূর্ব লণ্ডনের ডকল্যাণ্ডস লাইট রেলওয়ে স্টেশনের কাছে ব্রিটিশ-বাংলাদেশী এক কিশোরের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। ধারণা করা হচ্ছে, গ্যাং ফাইটের শিকার হয়ে খুন হয়েছে ওই কিশোর। তবে মৃত্যুর কারন বের করতে পুলিশ তদন্ত অব্যাহত রেখেছে। ঘটনাটি ঘটে ইস্ট লণ্ডনের বেকটন এলাকার গ্যালিয়ন্স রীচ ডিএলআর স্টেশনের পাশে। পুলিশের পাঠানো তথ্যানুযায়ী জানা যায় যে, ৩ মার্চ, মঙ্গলবার সকাল সাড়ে আটটার দিকে একটি ফোন কল পেয়ে লণ্ডন অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিসের টিম সেখানে পৌঁছে। অ্যাম্বুলেন্স টিম সেখানে পৌঁছার পর মাথায় আঘাত পাওয়া ১৬ বছরের এক কিশোরকে পড়ে থাকতে দেখে। পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে তারা তাকে ঘটনাস্থলে মৃত বলে ঘোষণা করে। তাৎক্ষণিক অফিসিয়াল পরিচিতি প্রকাশ না করলেও পুলিশের ধারণা যে সে মেনর পার্কের বাসিন্দা এবং নাম শানুর আহমদ এবং তার পরিবারকে বিষয়টি অবহিত করা হয়েছে এবং তাদের স্পেশালিস্ট পুলিশ অফিসারদের মাধ্যমে সহায়তা দেওয়া হচ্ছে।

এদিকে, আগের দিন সন্ধ্যা থেকে নিখোঁজ ছিলেন কিশোর শানুর আহমদ। পরিবারের পক্ষ থেকে পুলিশেও জানানো হয়। পরিবার ভাবছিলো হয়তো পুলিশ তাকে কোনভাবে খোঁজে পাবে। কিন্তু পরদিন সকালেই তার মৃত দেহ উদ্ধারের নির্মম সংবাদ শুনতে হয় তাদের। বুধবারও শানুরের শোকাহত আত“ীয়-স্বজনরা তাকে হত্যার প্রমাণ খুঁজতে ব্যস্ত ছিলেন। তারা মৃহদেহ উদ্ধারের পাশ্ববর্তী স্থান থেকে শানুরের ব্যবহৃত চমশা ও পকেটে থাকা টিস্যু খুঁজে পেয়ে পুলিশকে জানান এবং তখনও সেখানে রক্তের দাগ লেগেছিলো। অন্য একটি সূত্রে তার আহমদ দায়ান বলে জানা গেছে। তার বাবার নাম শরীফ আহমদ। তাদের আদি নিবাস সিলেটে।

পুলিশ সূত্র আরো জানা যায় যে, আগের সন্ধ্যা ২ মার্চ, সোমবার সন্ধ্যা ৭টা ৫০ মিনিটে একটি ফোন কল পেয়ে ওইস্থানে ছুটে যায় তারা। সেখানে পৌঁছার পর একজন পথচারী পুলিশকে জানান যে প্রায় ৩০ জন তরুণের একটি গ্যাং গ্রæপকে তিনি দেখেছেন যারা বেইজবল ব্যাট বহন করছিলো। তবে পুলিশ অফিসাররা ঘটনাস্থল তল্লাসি করেও সন্দেহভাজন কারো সন্ধান পাননি। পুলিশ এখন সন্দেহভাজন এই ৩০ তরুণের দুর্বৃত্তের দলকে খোঁজছে।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

Back to top button
Close
Close