চেতনায় বাংলাদেশের মেলা অনুষ্ঠিত

নিউজ

লণ্ডন, ২৪ ডিসেম্বর – এক প্রাণবন্ত উদ্দীপনা আর আনন্দের মধ্যদিয়ে গত ২১শে ডিসেম্বর, শনিবার ২০১৯ “আমাদের বিজয় আমাদের অহঙ্কার” – এই স্লোগান নিয়ে ‘চেতনায় বাংলাদেশে’র উদ্যোগে ইস্ট লন্ডনের ম্যানরপার্কে সারাদিনব্যাপী অনুষ্ঠিত হয়ে গেল বিজয়মেলা ২০১৯। চেতনায় বাংলাদেশের ফাউন্ডার মীরা বড়ুয়ার তত্ত্বাবধানে এই মেলার বিশেষত্ব ছিল শতশিশুর কন্ঠে জাতীয় সংগীত পরিবেশনা, সেইসাথে ছিল শিশুদের চিত্রাংকন , বক্তৃতা ও যেমন খুশী তেমন সাজ, বাংগালী সাজে সাজ প্রতিযোগিতা ও বর্ণাঢ্য সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

অনুষ্ঠানের একাংশ

চেতনায় বাংলাদেশের সেক্রেটারী নাজরাতুন নাঈম ইসলামের পরিচালনায় চিত্রাংকন প্রতিযোগীতার মধ্য দিয়ে শুরু হয় মেলার অনুষ্ঠান । এই পর্বের তত্ত্বাবধানে ছিলেন সদস্য , সমাজকর্মী নারগিস সুলতানা সদস্য, মেলার অন্যতম পৃষ্টপোষক তাহমিনা আলী, শিক্ষক ও ইস্ট লন্ডন ট্যুইশন এন্ড ট্রেনিং সেন্টারের পরিচালক শওকত আলী ও ব্যাংক অব আইডিয়ার তানজিলা জামান । বেলা তিন ঘটিকায় মেলার বিশেষ অতিথি বৃটেনে নিযুক্ত বাংলাদেশের মান্যবর হাইকমিশনার সাঈদা তাসনিম মুনা মেলা প্রাঙ্গনে পদার্পণ করেন । চেতনায় বাংলাদেশের সদস্যরা তাকে সংগঠনের মেডেল ঊপহার দিয়ে সারিবদ্ধ হয়ে বরণ করেন। এরপর একে একে শুরু হয় অনুষ্ঠানের মূল আকর্ষণ ‘শত শিশুর কন্ঠে জাতীয় সংগীত’, প্রত্যেক শিশুকে মেডেল পরানো, দেশাত্মবোধক গান , চেতনায় বাংলাদেশের সদস্য কর্তৃক পরিবেশিত কোরাস গান, আমাদের বিজয় আমাদের অহংকার শীর্ষক বক্তৃতা প্রতিযোগিতা ও শিশুদের পরিবেশিত গান, কবিতা ও নৃত্য । সমগ্র সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের নেতৃত্বে ছিলেন বৃটেনের বিশিষ্ট সংগীত শিল্পী শর্মিলা দাস, নৃত্যশিল্পী ও সমাজকর্মী ও সংগঠক সোহেল আহমদ ও সাংস্কৃতিক কর্মী ও উপস্থাপিকা সুমনা সুমী। এই পর্বের সমাপনীতে বক্তব্য রাখেন কাউন্সিলার রহিমা রহমান, কাউন্সিলার জসিম রহমান ,কাউন্সিলার ফয়জুর রহমান, নারী দিগন্তের অর্গেনাইজিং সেক্রেটারী লিপি ফেরদৌসী, সাংস্কৃতিক কর্মী মিস্টার বেরী, চ্যানেল এস এর ফাউন্ডার মাহী ফেরদৌস জলিল, ডাইরেক্টর তাজ ইসলাম ও আরও গণ্যমান্য অতিথিরা । সবশেষে বক্তব্য রাখেন মাননীয় হাই কমিশনার সাঈদা তাসনিম মুনা। মান্যবর হাইকমিশনার উনার বক্তব্যে বলেন প্রবাসে একটি আয়োজনে এত শিশুর সমাগম তিনি এই প্রথম দেখলেন এবং মুগ্ধ হলেন । সংগঠনের কার্যক্রম জানার জন্য চেতনায় বাংলাদেশের সকল সদস্যকে তিনি বিশেষভাবে হাইকমিশনে নিমন্ত্রণ জানিয়েছেন , সেইসাথে মুজিবর্ষে বিজয় মেলায় অংশগ্রহণকারী সকল শিশুকে মুজিবর্ষে অংশ নেয়ার নিমন্ত্রণ জানিয়ে আগামীতে অনুষ্ঠিতব্য সকল বড় বড় অনুষ্ঠানে যাওয়ার সুযোগ করে দিয়েছেন । চ্যানেল এস এর ফাউন্ডার মাহী জলিল শিশুদের গানে মুগ্ধ হয়েছেন ও তাদের সাথে এক হয়ে আনন্দ করেছেন । ডাইরেক্টর তাজ ইসলাম শিশুদের যেমন খুশী তেমন সাজ অনুষ্ঠানে বিচারকের ভূমিকা পালন করেছেন এবং তিনি শিশুদের কৃতিত্ব দেখে প্রশংসা করেছেন এবং বলেছেন চ্যানেল এস সবসময় চেতনায় বাংলাদেশকে সহযোগীতা দিবে ।

অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় পর্বে ছিল বৃটেনের স্বনামধন্য শিল্পীদের পরিবেশনায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। অনুষ্ঠানের সর্বশেষ প্রতিযোগিতা ছিল “ যেমন খুশী তেমন সাজ , বাংগালী সাজে সাজ” , এতে প্রথম পুরস্কার পেয়েছে সাইকা , সে সেজেছিল “ বেগম রোকেয়া “ । বীরাঙ্গনা সাজ হয়েছিল দ্বিতীয় । অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ছিল আরও বেশী আনন্দ কোলাহলে মূখরিত । বিশিস্ট সমাজকর্মী সেলিম মালিক পাপ্পা এবং সাংস্কৃতিক কর্মী শিল্পী, বিশিষ্ট সংগঠক কবির আহমদ সকল বিশেষ অতিথি ও মেলায় আগত সকল শিশুদের উপহার প্রদান করেন । অনুষ্ঠানের বিভিন্ন পর্ব পরিচালনা করেন সুমনা সুমী, সুহেল আহমদ, নাজরাতুন নাঈম, শর্মীলা দাস, ক্ষুদ্র লেখিকা, এশিয়ান টেলিভিশনের প্রেজেন্টার মিফাতুল নূর, তাহমিনা আলী ও নারগিস সুলতানা । অাথিতেয়তায় ও সার্বিক ব্যাবস্থাপনায় ছিলেন সমাজকর্মী সাদিয়া, কবি মণিরা মলি, সংগঠক আছমা আলম, সংগঠক সেলিম মালিক, পাবক দাস, শিক্ষক শওকত আলী, আছমা শিল্পী ও তানিয়া । মেলায় রকমারী পণ্যের স্টল ছিল । সর্বশেষে চেতনায় বাংলাদেশের প্রেসিডেন্ট মীরা বড়ুয়া সকল সদস্য, অতিথী ও পৃষ্টপোষকদের জানান অভিনন্দন । চেতনায় বাংলাদেশের সেক্রেটারী নাজরাতুন নাঈম ইসলামের ধন্যবাদ জ্ঞাপনের মধ্যদিয়ে একটি দিনব্যাপী আয়োজিত মেলার সফল সমাপ্তি হয় ।