নিউজ

৭ নভেম্বর উপলক্ষে লন্ডনে জাসাসের সেমিনার: আত্মপরিচয় ও আত্মনিয়ন্ত্রণের অধিকার ফিরে পেতে জাতীয় ঐক্যের বিকল্প নেই

লণ্ডন, ২০ নভেম্বর – বাংলাদেশ চার দশক পরে আবারো সর্ব ক্ষেত্রে নৈরাজ্য ও সার্বভৌমত্ব হুমকির সম্মুখীন হয় আরেকটি ৭ই নভেম্বরের প্রয়োজন এখন সবচেয়ে বেশি। জাতির যেকোনো দুর্যোগে সম্মিলিত ঐক্যের যেমন বিকল্প নেই ঠিক তেমনি বর্তমান অবস্থা থেকে উত্তরণে সকল শ্রেণী-পেশার মানুষকে ৭ই নভেম্বরের মতই জাতীয় ঐক্যের সূচনা করে আত্মনিয়ন্ত্রণ ও আত্মমর্যাদার অধিকার ফিরিয়ে আনতে সর্বব্যাপী ঐক্যবদ্ধ সংগ্রামের আহ্বান জানানো হয়।

যুক্তরাজ্য জাসাসের সভাপতি এমাদুর রহমাননের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক তাজবীর চৌধুরী শিমুল ও আব্দুল মোতালেব লিটনের যৌথ সঞ্চালনায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, যুক্তরাজ্য বিএনপির সভাপতি এম এ মালেক। সেমিনারে অন্যান্যের মধ্যে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন  যুক্তরাজ্য বিএনপি’র উপদেষ্টা এম এ হামিদ চৌধুরী ও ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদ খান।
তরিকুর রশীদ চৌধুরীর স্বাগত বক্তব‍্যের পর মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বিশিষ্ট সাংবাদিক ও সাবেক রাষ্ট্রপতির প্রেস সচিব শামসুল আলম লিটন ও মূল প্রবন্ধের উপর আলোচনায় অংশ নেন, বিশিষ্ট সাংবাদিক ও কবি আহমেদ ময়েজ।

বক্তারা তাঁদের বক্তব্যে বলেন, বর্তমানে  সরকার বাংলাদেশের মূল সংস্কৃতি  ধ্বংস করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। সংস্কৃতির নামে অপসংস্কৃতিতে ডুবে যাচ্ছে গোটা জাতি। ভুলে যাচ্ছে  নিজস্ব কৃষ্টি এবং কালচার।   পার্শ্ববর্তী রাষ্ট্রের সংস্কৃতি নামে বেহায়াপনা পরিকল্পিতভাবে ছড়িয়ে দিচ্ছে।
সেমিনারে মূল প্রবন্ধ ও আলোচনায় বক্তারা বলেন, মাত্র ৪৪ বছরের ব্যবধানে বাংলাদেশ আরেকবার আত্মপরিচয়ের সঙ্কটে পড়বে, এই আশঙ্কা কেউ কখনো হয়তো করেননি। এক সাগর রক্তের বিনিময়ে আর হাজার মা বোনের ইজ্জতের বিনিময়ে স্বাধীনতা অর্জনের পরপরই বাংলাদেশ হারাতে থাকে একের পর এক তার রাজনৈতিক স্বাধীনতা, আত্মনিয়ন্ত্রণের অধিকার আর অর্থনৈতিক মুক্তির স্বপ্ন। একদলীয় স্বৈরাচার, দুর্ভিক্ষ আর ভয়াবহ দুঃশাসন স্বাধীনতার স্বপ্নকে মলিন করে দেয়। আর রক্তে কেনা স্বাধীনতা বিলীন হয়ে যেতে থাকে সম্প্রসারণবাদের করাল থাবায়। বক্তারা আরও বলেন, আজকের বাস্তবতার সঙ্গে সেদিনের পরিস্থিতির কোন পার্থক্য নেই বরং কোন কোন ক্ষেত্রে দেশের পরিস্থিতি আরো খারাপ হয়েছে খুন গুম এবং দুর্নীতি এমন একটা পর্যায়ে পৌঁছেছে যেখানে জনগণ প্রতিবাদের সাহস ও সুযোগ সবকিছুই হারিয়েছে। বক্তারা এ অবস্থা থেকে উত্তরণে সকল শ্রেণী-পেশার মানুষকে ৭ই নভেম্বরের মতোই আরেকবার জাতীয় ঐক্য গড়ে দ্বিতীয় মুক্তিযুদ্ধের সূচনা করার আহ্বান জানান।

এছাড়া মূল প্রবন্ধের উপর অন্যান্যের মধ্যে আলোচনায় অংশ নেন, এম এ সালাম, ইকবাল হোসেন, সালেহ গজনবী, তুফায়েল বাসিত তপু, শেখ তপু, সাজ্জাদ আহমেদ, রাশিয়া বি এন পি সভাপতি আবুল কাসেম, হাবিবুর রহমান বাবলু, আরিফ আহমেদ, সহিদ আহমেদ, কবির আহমেদ বাহার,  আবুল হুসেইন আলাম, এড মিজানুর রহমান, কামাল মিয়া, সরিফুল ইসলাম, আখলাকুর চৌ মাননা,মৌলানা সামিম আহমেদ, ডালিয়া লাকুরিয়া,মইনুল ইসলাম,কবি  কবির আহমেদ, সাইয়িদা নাসিমা ও দুদু মিয়া ।
সেমিনারের প্রবন্ধকার ও রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ মুল প্রবন্ধের উপর উত্থাপিত বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন। 

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে আরো উপস্থিত ছিলেন,  খলিলুর রহমান রোকন, রাজ হাসান , তানভির খান, এম আব্দুল্লাহ মামুন,  সোনিয়া তাসনিম, ফেরদৌসী বেগম, মাসুদুজ্জামান, এড রুক্সানা কাকলি, সাহেদ আহমেদ, তাসনিম ফেরদৌস, আলাউদ্দিন প্রমূখ।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

Back to top button
Close
Close