হাসপাতালে চিকিৎসার আগে ইমিগ্র‍্যাশন স্ট‍্যাটাস যাচাই প্রসঙ্গ: প্রত্যাহারের আবেদন জানালেন মেয়র জন বিগস

নিউজ

লণ্ডন, ২৮ আগষ্ট – চিকিৎসার আগে ইমিগ্র্যাশন স্ট্যাটাস যাচাই  হাসপাতালে চিকিৎসা নেয়ার আগে ইমিগ্র্যাশন স্ট্যাটাস অর্থাৎ ফ্রি চিকিৎসা পাবার উপযুক্ততা যাচাই করার পলিসির তীব্র সমালোচনা করে টাওয়ার হ্যামলেটসের মেয়র জন বিগস হেলথ সেক্রেটারীর কাছে চিঠি দিয়েছেন। চিঠিতে তিনি অভিলম্বে তা প্রত্যাহারের আবেদন জানিয়েছেন। হেলথ সেক্রেটারী রাইট অনারেবল ম্যাট হ্যানকুক এমপির কাছে লেখা চিঠিতে লোকাল মেডিক্যাল কমিটি ফর টাওয়ার হ্যামলেটস এর চেয়ার ড. জ্যাকি এপ্যালবিও স্বাক্ষর করেছেন। এই যৌথ চিঠিতে তারা বলেছেন সরকারের এই হসটাইল এনভায়রনমেন্ট নীতি টাওয়ার হ্যামলেটসের মতো বৈচিত্র্যপূর্ন এলাকাগুলোতে মারাত্মক নেতিবাচক প্রভাব ফেলবে। এমনকি যারা ফ্রি চিকিৎসা পাবার যোগ্য তাদের জন্যও এটা একটা মানসিক চাপের বিষয়। এছাড়া এটি কাজের চাপে থাকা এনএইচএস স্টাফদের জন্যও নতুন দায়িত্ব যা এনএইচএসের সাভিঁসকে প্রভাবিত করবে। তারা বলেন দীর্ঘ মেয়াদে এই পলিসি এনএইচএস এর খরচ বৃদ্ধি করবে এবং ইমার্জেন্সি চিকিৎসার জন্য আগত রোগীদের বঞ্চিত করবে। এই সার্ভিস পাবার জন্য যোগ্যতা যাচাই কাম্য হতে পারেনা। এটি এনএইচএসকে বিপদজ্জনক পরিস্থিতির দিকে ঠেলে দিবে বলেও তারা সতর্ক করে দেন।   উল্লেখ্য যে, বার্টস হেলথ ট্রাস্ট এই পলিসি এর কার্যকারিতা নিয়ে সম্প্রতি একটি পাইলট প্রজেক্ট পরিচালনা করে। এতে দেখা যায় যে, ১৮০ জনের মধ্যে মাত্র ১ জন (০.৫%) ফ্রি হাসপাতাল চিকিৎসার জন উপযুক্ত নন। এর মানে হচ্ছে এই কাজে ব্যায়ের তুলনায় খুবই নগন্য পরিমানের অর্থ উদ্ধার হয়েছে। সম্প্রতি ডিপার্টমেন্ট অব হেলথ সারা দেশের হসপিটাল ট্রাস্টগুলোকে ব্রেক্সিটের সাথে সাথেই ইইউ নাগরিকরা ফ্রি চিকিৎসা উপযুক্ত কীনা তা যাচাই করতে নির্দেশনা জারী করেছে।   মেয়র জন বিগস বলেন, আমাদের সবচাইতে পরিক্ষীত এবং মূল্যবান একটি প্রতিষ্ঠানে সরকারে এই পলিসি বাস্তবায়িত হলে ক্ষতিই বয়ে আনবে। আর এজন্য এই পলিসির বিরুদ্ধে বয়ে যাওয়া সমালোচনা সঠিক। এধরনের কাজ হাসপাতালের হতে পারেনা। এটা কোনভাবেই একটি সঠিক উদ্যোগ নয়। ড. জ্যাকী এপ্যালবি বলেন, চিকিৎসার জন্য ভিজিটরদের চার্জ করার বিষয়টি আমাদের ইমিগ্র্যান্ট কমিউনিটিতে একধরনের অস্বস্থি সৃষ্ঠি করেছে। এছাড়া এটি খরচের সাথে ভারসাম্যপূর্ন যেমন নয় তেমনি এনএইচএস প্রতিষ্টার মৌলিক মূল্যবোধের সাথেও সামঞ্জস্যপূর্ন নয়। এই পলিসি কোনভাবেই গ্রহনযোগ্য হতে পারে না। এডাল্টস, হেলথ এন্ড ওয়েলবিং বিষয়ক কেবিনেট মেম্বার কাউন্সিলার আমিনা আলী বলেন, এই পলিসি একটি কমিউনিটিকে কোনঠাসা এবং আতংকিত করবে। অথচ তাদের বেশিরভাগই ফ্রি চিকিৎসা পাবার যোগ্য। এই পলিসির মাধ্যমে কাজের কাজ কিছুই হবে না উল্টো এনএইচএসের খরচ বৃদ্ধি করবে। এটি বাস্তবায়নের আগে একটি ভঙ্গুর জনগোষ্ঠীতে কী প্রভাব ফেলবে সরকারের উচিৎ যাচাই করে দেখা।